গার্মেন্ট শ্রমিকদের মজুরির যুক্তিযুক্ত সমাধান করার আহ্বান টিইউসির

Posted: 19 নভেম্বর, 2023

একতা প্রতিবেদক : বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র (টিইউসি)’র জাতীয় পরিষদ সভা গত ১২ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, পোশাক শিল্পের শ্রমিকদের জন্য গত ৭ নভেম্বর যে মজুরি ঘোষণা করেছে তা খুবই অপ্রতুল। ঘোষিত মজুরি বাংলাদেশ শ্রমআইন ২০০৬ এর ধারা ১৪১ এর সংগতিপূর্ণ নয়। ধারা ১৪১ মোতাবেক শ্রমিকদের জীবন-যাপন ব্যয়, উৎপাদন খরচ, উৎপাদনশীলতা, উৎপাদিত পণ্যের মূল্য, মুদ্রাস্ফীতি, কাজের ধরন, ঝুঁকি ও মান, ব্যবসায়িক সক্ষমতা, সংশ্লিষ্ট এলাকার আর্থসামাজিক অবস্থা এবং অন্যান্য প্রাসঙ্গিক বিষয় বিবেচনা করে দেখার নিয়ম রয়েছে। মালিক ও শ্রমিক প্রতিনিধিদের নিয়ে ত্রিপক্ষীয় পরামর্শক পরিষদ (টিসিসি) কে পাশ কাটিয়ে সম্প্রতি শ্রমআইন সংশোধনী বিল যেভাবে পাশ করানো হয়, তা অগণতান্ত্রিক ও সংবিধানবিরোধী। প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা ও টিইউসি কেন্দ্রীয় সভাপতি সহিদুল্লাহ চৌধুরির সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, সহ-সভাপতি তপন দত্ত, আব্দুর রাজ্জাক, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, দপ্তর সম্পাদক সাহিদা পারভীন শিখা, অর্থ সম্পাদক কাজী রুহুল আমীন, কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাড. একে আজাদ, অ্যাড. মন্টু ঘোষ, মোবারক হোসেন, দেওয়ান বদিউজ্জামান, ইফতেখার কামাল খান, কমল বসাক প্রমুখ। সভায় বলা হয়, প্রতি ৫বছর পরপর শিল্প প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের মজুরি নির্ধারণের নিয়ম থাকলেও দেশে বহু শিল্প প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি করা হয়নি। ট্যানারী শ্রমিকদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন ট্যানারী ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের কোন প্রতিনিধি রাখা হয়নি, যা খুবই দুঃখজনক। সভা থেকে ট্যানারী শ্রমিকদের মজুরি ন্যায্যভাবে পুনর্নির্ধারণের জন্য মজুরি বোর্ডে ট্যানারী শ্রমিক প্রতিনিধি রাখার জন্য জোর দাবি জানান। সভায় বাজার দর, শ্রমিকদের উৎপাদনশীলতা, শিল্পের সক্ষমতা, মাথাপিছু জাতীয় আয় বিবেচনায় জাতীয় ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণ ও প্রতিবছর বাজার দরের সাথে সংগতি রেখে মহার্ঘ ভাতা প্রদানের দাবি জানান। বন্ধকৃত পাটকল চালু, আইএলও কনভেনশন অনুযায়ী শ্রম আইন সংশোধন ও শ্রমজীবী মানুষের জন্য রেশন সরবারের দাবি জানান নেতৃবৃন্দ। সারাদেশের বিভিন্ন জেলা ও শিল্পাঞ্চল থেকে ৬০ জনের বেশি প্রতিনিধি সভায় অংশগ্রহণ করেন।