যুক্তরাষ্ট্রে কিশোরের খুনের দায়ে দোষী সাব্যস্ত মা

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা বিদেশ ডেস্ক : কিশোর সন্তান বিদ্যালয়ে গুলি চালিয়ে কয়েকজনকে হত্যা করেছিল। যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানের এক আদালতের জুরি ওই কিশোরের মার বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত নরহত্যায় জড়িত থাকায় দোষী সাব্যস্ত করেছেন। আলোচিত মামলাটি নিয়ে সম্প্রতি এ ঘোষণা দেন জুরিরা। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে বিদ্যালয়ে গুলি চালিয়ে কিশোর সন্তানের হত্যার অপরাধে মা–বাবা দোষী সাব্যস্ত হওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম। আদালতে দোষী সাব্যস্ত হওয়া মায়ের নাম জেনিফার ক্রাম্বলে (৪৫)। তাঁর স্বামী জেমস (৪৭)। জেনিফারের বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত নরহত্যায় জড়িত থাকার চারটি অভিযোগ আনা হয়েছিল। মিশিগানের পন্টিয়াকের এক আদালতের জুরিরা দেড় দিনের আলোচনার পর ৪ টি অভিযোগেই জেনিফারকে দোষী সাব্যস্ত করেন। আগামী ৯ এপ্রিল জেনিফারের বিরুদ্ধে সাজা ঘোষণা করা হবে। তাঁর ১৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। আর তাঁর স্বামী জেমসের আগামী মার্চে আলাদাভাবে বিচার হওয়ার কথা রয়েছে। জেনিফার-জেমস দম্পতির সন্তান ইথান ক্রাম্বলে (১৭)। ২০২১ সালের ৩০ নভেম্বর অক্সফোর্ড হাইস্কুলে এলোপাতাড়ি গুলি চালায় ইথান। এতে চার শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়। হত্যার দায়ে ইথান যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ভোগ করছে। একটি ৯ এমএম এসআইজি শুয়ের হ্যান্ডগান দিয়ে বিদ্যালয়ে গুলি চালিয়েছিল ইথান। মা-বাবা ইথানকে এ বন্দুকটি কিনে দিয়েছিলেন। সেই সঙ্গে অভিযোগ আনা হয়েছে, ইথান আগে থেকে মানসিক সমস্যায় ভুগছিল। সেটা নিয়ে কিশোর ইথানের অভিভাবকেরা আগে থেকে সতর্ক করে দেননি। যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের শেষ পর্যায়ে সরকারি কৌসুলি কারেন ম্যাকডোনাল্ড জুরির উদ্দেশে বলেন, সন্তানের সাধারণ যত্ন নিতেও ব্যর্থ হয়েছেন জেনিফার। অথচ তাঁর মর্মান্তিকভাবে সরল ও ছোট উদ্যোগ এমন ঘটনা এড়াতে পারত। কারেন ম্যাকডোনাল্ড আরও বলেন, তিনি (জেনিফার) গুলি বন্ধ জায়গায় তুলে রাখতে পারতেন। বন্দুকটিও তুলে রাখতে পারতেন। এমনকি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে আগে থেকেই জানিয়ে রাখতে পারতেন, ছেলেকে তাঁরা (জেনিফার ও জেমস) বন্দুক উপহার দিয়েছেন। ইথান মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে আগেও সংকটে পড়েছে, এটি জেনিফার বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে আগে থেকে জানাতে পারতেন। কর্তৃপক্ষের সহায়তা চাইতে পারতেন বলেও আদালতে উল্লেখ করেছেন ম্যাকডোনাল্ড।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..