ঘূর্ণিঝড় মিধিলি : সাতজনের মৃত্যু, ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : টেকনাফে বসতঘরের মাটির দেয়াল ধসে একই পরিবারের চারজনের মৃত্যু। গাছের ডাল ভেঙে পড়ে চট্টগ্রামে দুজন ও টাঙ্গাইলে একজনের মৃত্যু। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় মিধিলির প্রভাবে গত ১৭ নভেম্বর বরিশাল-খুলনা থেকে শুরু করে চট্টগ্রাম পর্যন্ত উপকূলজুড়ে বয়ে যাওয়া ঝোড়ো বাতাস ও ভারি বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। গাছ ও দেয়াল চাপা পড়ে এখন পর্যন্ত সাতজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। অসংখ্য গাছপালা উপড়ে পড়েছে। এতে কয়েকটি জেলার আঞ্চলিক ও স্থানীয় সড়কে সাময়িকভাবে যানবাহন চলাচল বন্ধ হড়ে পড়েছিলো। বিনষ্ট হয়েছে খেতের ফসল ও শাকসবজি। তার ছিঁড়ে পড়ায় অনেক এলাকা বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন। কাঁচাঘর ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ঘর ভেঙে পড়েছে। বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করে ঘূর্ণিঝড় মিধিলি গভীর নিম্নচাপ আকারে পটুয়াখালী এলাকায় অবস্থান করছিল। মিধিলি দুর্বল হয়ে যাওয়ায় মোংলা ও পায়রা বন্দরে দেওয়া ৭ নম্বর বিপৎসংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর করা হয়েছে। চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার বন্দরের ৬ নম্বর বিপৎসংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর করা হয়েছে। কক্সবাজারের টেকনাফে ভারি বৃষ্টিতে বসতঘরের মাটির দেয়াল ধসে একই পরিবারের চারজন নিহত হয়েছেন। গত ১৬ নভেম্বর রাতে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের মৌলভীবাজারের মরিচ্যাঘোনার পানিরছড়া এলাকায় ওই চারজন নিহত হন। তাঁরা হলেন ওই এলাকার ফকির মোহাম্মদের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৫০), তাঁর ছেলে শাহিদুল মোস্তফা (২০), মেয়ে নিলুফা ইয়াছমিন (১৫) ও সাদিয়া বেগম (১১)। স্থানীয় চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী বলেন, মিধিলির প্রভাবে গত ১৬ নভেম্বর সকাল থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছিল। রাত আটটার পর থেকে কয়েক দফা ভারি ও মাঝারি বৃষ্টি অব্যাহত থাকে। এর মধ্যে বসতঘরের মাটির দেয়াল চাপায় পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকারী একটি পরিবারের চারজন নিহত হন। চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে ঝড়ের সময় গাছের ডাল ভেঙে পড়ে আবদুল ওহাব নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। ওহাব সন্দ্বীপের মগধরা ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। মিরসরাইয়ে গাছের ডাল ভেঙে পড়ে মারা গেছে ছিদরাতুল মুনতাহা নামের এক শিশু। মুনতাহা মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের দক্ষিণ সোনাপাহাড়ের মহানগর এলাকার আনোয়ার হোসেনের মেয়ে। গত ১৭ নভেম্বর দুপুরে টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলা পরিষদের গেটের সামনে ঝোড়ো বাতাসে গাছের ডাল ভেঙে পড়ে রাজ্জাক মিয়া (৪০) নামের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়। রাজ্জাক মিয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের মিরিকপুর গ্রামের কুসুম মিয়ার ছেলে। তিনি বাসাইলের কোটিপতি মার্কেটে কাপড়ের ব্যবসা করতেন। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে টানা বৃষ্টি ও ঝোড়ো হাওয়ায় পটুয়াখালীতে রোপা আমন ফসলের ৭৫ শতাংশ কোনো না কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ। জেলার ১ লাখ ৮০ হাজার হেক্টর রোপা আমন ফসল ঘূর্ণিবাতাসের শিকার হয়েছে। এ ছাড়া খেসারিসহ মাঠে থাকা সবজিরও ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। দু-এক দিনের মধ্যে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন পটুয়াখালী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। টানা বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে বাগেরহাটের কয়েক হাজার হেক্টর জমির বীজতলা। মাঠঘাট ও ফসলি জমি পানির নিচে তলিয়ে থাকায় খেতের ধান ভেসে যাওয়া ও নষ্ট হওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এ ছাড়া চারা দেওয়ার জন্য বীজধান প্রস্তুত থাকলেও পানি ও বৃষ্টির কারণে বুনতে পারছেন না কৃষকেরা। ঝড়ের আঘাতে চাঁদপুর শহরের রেলওয়ে আক্কাছ আলী একাডেমির সামনে একটি বড় গাছ বিদ্যুতের তারের ওপর পড়ে। এতে রেলপথ ও সড়ক দুটিই বন্ধ হয়ে গেছে। একই সঙ্গে অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে পুরো শহর। চাঁদপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কর্মকর্তা মোরশেদ হোসেন বলেন, বিকেলে ঝড়ের আঘাতে চাঁদপুর শহর ছাড়াও কচুয়া, শাহরাস্তি ও হাজীগঞ্জ উপজেলার সামনে এবং হাইমচরের একটি বসতঘরের ওপর গাছ উপড়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। ঝড়ের আঘাতে বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে ও তার ছিঁড়ে পড়ায় দেশের বিভিন্ন এলাকা অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। নোয়াখালী শহরের পাঁচ রাস্তার মোড় এলাকায় একটি গাছ উপড়ে পড়ে বিদ্যুতের লাইন ছিঁড়ে গেছে। বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (বিউবো) নোয়াখালীর নির্বাহী প্রকৌশলী হাবিবুল বাহার বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে বিভিন্ন স্থানে গাছের ঢালপালা পড়ে বিদ্যুৎ লাইনের তার ছিঁড়ে গেছে। এতে পুরো শহরে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। কক্সবাজারের দ্বীপ উপজেলা মহেশখালী ও কুতুবদিয়ায় দুপুর থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ আছে। ফেনীর বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে পড়ায় দুপুর থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়। নোয়াখালীর হাতিয়া ও সুবর্ণচর উপজেলায় প্রাথমিকভাবে ৩০টি কাঁচাঘর, দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ঘর বিধ্বস্তের খবর পাওয়া গেছে। এ ছাড়া ঝড়ের আঘাতে অসংখ্য গাছপালা উপড়ে পড়েছে। নষ্ট হয়েছে আমন ফসল ও উঠতি শাকসবজি। হাতিয়া উপজেলার চতলার ঘাটে ২৫০ বস্তা ধানসহ একটি ট্রলার ডুবে গেছে। এ ছাড়া ডুবে গেছে ঘাটে থাকা একটি ড্রেজার। সেখানে গাছের ডাল ভেঙে পড়ে মো. হানিফ (৬০) নামের এক ব্যক্তি আহত হয়েছেন।
শেষের পাতা
সরকার প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে কর্মসংস্থান উচ্ছেদ শুরু করেছে
ভোটাধিকার হরণ করে সরকার কর্তৃত্ববাদী শাসন কায়েম করছে
ছাত্র-জনতার ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে
আশুগঞ্জ সেচ প্রকল্পে পানি সরবরাহের দাবি
গাইবান্ধায় আবারও বাম জোটের পথসভায় পুলিশের বাঁধা
চাঁদাবাজ-সন্ত্রাসী ও মদদদাতা পুলিশের বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধের ঘোষণা
সারাদেশে সিপিবির শাখা সম্মেলন চলমান
কমরেড দুলাল কুন্ডু সাম্যবাদী সমাজব্যবস্থার স্বপ্ন দেখতেন
ধর্ষণের সাথে জড়িতদের বিচারের দাবি
নিত্যপণ্যের দাম কমানোর দাবি ক্ষেতমজুরদের
আইনজীবীদের সমস্যা সমাধানে আন্দোলন গড়তে হবে
৭ দিনের সংবাদ...

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..