সরকারি গুদামে ধান বিক্রিতে আগ্রহ নেই চাষিদের

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
বগুড়া সংবাদাতা : বগুড়ার ধুনট উপজেলায় সরাসরি চাষিদের কাছ থেকে সরকারিভাবে ধান ক্রয় কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। ধানের বর্তমান বাজারদর ও গুদামে ধান ক্রয়ের সরকার নির্ধারিত দাম প্রায় সমান। এমন পরিস্থিতিতে গুদামে ধান বিক্রি করে তেমন লাভ থাকবে না। এ কারণে গুদামে ধান বিক্রি করতে কৃষকের আগ্রহ কম। তবে কৃষকেরা জানান, গুদামে ধান নিয়ে গেলে আর্দ্রতার কথা বলে প্রতি মণে এক-দুই কেজি করে বেশি ধান নেওয়া হয়। ভেজা বলে অনেক সময় ধান ফেরতও দেওয়া হয়। ধান বিক্রি করে টাকার জন্য ঘুরতে হয় বেশ কয়েক দিন। সঙ্গে গাড়ি ভাড়া ও শ্রমিক খরচ লাগে। এছাড়াও খাদ্যগুদাম কর্তৃপক্ষ নানা অজুহাত দেখায়। বড়বিলা গ্রামের কৃষক জাহিদুল ইসলাম বলেন, সরকারিভাবে ধানের দাম কম হওয়ায় গ্রামে বিক্রি করেছি বেশি দামে। গাড়ি ভাড়া দিয়ে গুদামে ধান নিলে লোকসান হয়। সেখানে নানা টালবাহানা করে। টাকা তুলতে ব্যাংকে ঘুরতে হয়। নানা হয়রানি ও বিড়ম্বনার মধ্যে পড়তে হয়। এ কারণে গুদামে ধান বিক্রি করছি না। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের দপ্তর সূত্র জানায়, এ উপজেলায় ২ হাজার ১৪৮ মেট্রিক টন ধান সংগ্রহ করা হবে। গত ১১ মে ধান সংগ্রহ অভিযান শুরু হয়েছে এবং তা ১৬ আগস্ট পর্যন্ত চলবে। কৃষি অ্যাপে আবেদনকারীদের মধ্যে থেকে লটারি করে ১ হাজার ১৩৯ জন কৃষক নির্বাচিত হয়েছে। এর মধ্যে সোমবার পর্যন্ত ১১ জন কৃষক গুদামে ২৯ মেট্রিক টন ধান বিক্রি করেছে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..