‘জোড়াতালি’

Posted: 07 জানুয়ারী, 2018

একতা প্রতিবেদক : সম্প্রতি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দেশের মানুষের প্রতি পরামর্শ জানিয়েছেন, তাঁরা যেন পদ্মা সেতুতে না উঠেন। তিনি তিন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী, তাঁর এই ধরনের পরামর্শের অবশ্যই একটি গুরুত্ব আছে। কেন তিনি এই ধরনের পরামর্শ দিলেন? কারণ, তিনি বলেছেন, পদ্মা সেতুর স্বপ্ন দেখাচ্ছে সরকার। কিন্তু পদ্মা সেতু আওয়ামী লীগের আমলে হবে না। এই পদ্মা সেতু জোড়াতালি দিয়ে বানানো হচ্ছে। ফলে সেই সেতুতে কেউ উঠবেন না। যাই হোক, যে কোনো মানুষেরই ব্যক্তি স্বাধীনতা আছে, তিনি যে কোনো কথা বলতেই পারেন। তার উপর খালেদা জিয়া একটি বড় দলের প্রধান, তিনি তো দেশবাসীকে পরামর্শ দিতেই পারেন। কিন্তু, মুশকিল হচ্ছে, এতদিন মানুষ জানতো জোড়াতালি দিয়ে অনেককিছুই হয়তো বানানো যায়, কিন্তু পদ্মা সেতুও যে জোড়াতালি দিয়ে বানানো যায়, এটা বোধ হয় মানুষের ধারণারও বাইরে ছিল। এই না হচ্ছে রাজনীতিবিদ! রাজনীতিবিদের কাজই হচ্ছে, নতুন নতুন জ্ঞানের সঙ্গে মানুষকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া। কিন্তু বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কী আরেকটি জিনিস খেয়াল করেছেন, এই সেতুটা কিন্তু হচ্ছে সম্পূর্ণ বাংলাদেশের মানুষের করের টাকায়। সূর্যোদয় থেকে শুরু করে সূর্যাস্ত পর্যন্ত যেসব মানুষ মাঠে-ঘাটে-হাটে খেটে মরে, তাদের ঘামের পয়সায় এই পদ্মাসেতু হচ্ছে। এখন এই সেতুতে যদি কেউ না উঠেন, তাহলে ক্ষতি কিন্তু বাংলাদেশেরই। কারণ, সেতুতে যদি মানুষ বা যানবাহন না উঠে তাহলে সরকার টোল পাবে না। তাহলে একবার মানুষ তাদের ঘামের পয়সা খরচ করে সেতু বানাল আবার তাদের সেই টাকাও পদ্মা নদীতে একেবারে ভেসে গেল! ব্যাপারটা কেমন হয়ে গেল না? তবে হ্যাঁ, সময়ের চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক বেশি। যদি সত্যিই পদ্মা সেতু জোড়াতালির হয়, তাহলে তো মানুষ উঠলে ভেঙে পড়ে একেবারে সলিল সমাধি হয়ে যাবে। তার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন আগে থেকে দেশবাসীকে সচেতন করে রাখতেই পারেন। কারণ, কে না জানে, এই আওয়ামী লীগের আমলেই তো বাঁশ দিয়ে বিল্ডিং বানানো হইছে। এই কথাটা তো আর মিথ্যা না!