পাঠ্যপুস্তকে সাম্প্রদায়িক পরিবর্তন এখনো বহাল!

Posted: 07 জানুয়ারী, 2018

একতা প্রতিবেদক : দেশের শিক্ষাবিদ, সংস্কৃতিকর্মী, অভিভাবক, উদ্বিগ্ন অসাম্প্রদায়িক মানুষের ন্যায্য দাবিকে উপেক্ষা করে গত বছর পাঠ্যপুস্তকসমূহে সম্পাদিত উদ্দেশ্যমূলক সাম্প্রদায়িক পরিবর্তন বহাল রেখে পুস্তক প্রকাশ ও বিতরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী। এক বিবৃতিতে উদীচী’র সভাপতি ড. সফিউদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক জামসেদ আনোয়ার তপন এ প্রতিবাদ জানিয়ে পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণির পাঠ্যবইসমূহে প্রগতিশীল লেখকদের বাদ দেয়া লেখাগুলো আবারো স্থাপন করার দাবি জানান। বিবৃতিতে বলা হয়, সাম্প্রদায়িক পাঠ্যপুস্তকের মাধ্যমে গড়ে ওঠা প্রজন্ম স্বাধীনতা সংগ্রামের চেতনা বাস্তবায়ন করবে না। বিবৃতিতে উদীচী’র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আরো বলেন, গত বছর শ্যামলী নাসরীন চৌধুরী প্রমুখদের নিয়ে গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটির কাছে সরকার কেবল নবম ও দশম শ্রেণির পাঠ্যবইগুলোকে সুখপাঠ্য করার বিষয়ে পরামর্শ চেয়েছিল, পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির বই সম্পর্কে নয়। এরপরও, সেই কমিটির পরামর্শও সরকার পুরোপুরি গ্রহণ করেনি। পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির বইগুলোর মূল পরিবর্তনগুলোতে হাত না দিয়ে কেবল বানানসহ দু’একটি ভুল সংশোধন করে জাতীয় পাঠক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) দেশবাসীর সাথে প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে। প্রকৃতপক্ষে, ব্যাপকভাবে প্রগতিশীল লেখকদের রচনা বাদ দেয়া হয়েছে পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির বাংলা ও আনন্দ পাঠ বই থেকে। উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর দাবির পরিপ্রেক্ষিতে গত বছর পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণির বাংলা ও আনন্দপাঠ বই থেকে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম, কালিদাস রায়, সত্যেন সেন, রণেশ দাশগুপ্ত, সুকুমার রায়, ফয়েজ আহমদ, সানাউল হক, নারায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়, জসিম উদ্দিন, স্বর্ণকুমারী দেবী, লালন শাহ, রঙ্গলাল বন্দোপাধ্যায়, সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়, হুমায়ুন আজাদ, সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়, মোতাহার হোসেন চৌধুরী, জ্ঞানদাস ও ভারতচন্দ্র রায়গুণাকর এর লেখা বাদ দেয়া হয়। এসব কালোত্তীর্ণ রচনা শিশু-কিশোরদেরকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, মানবিকতা, ভ্রাতৃত্ববোধ, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করা এবং সত্য, ন্যায় ও সুন্দরের প্রতি আকৃষ্ট করে তুলতে পারে। পশ্চাৎপদ ও মৌলবাদের তোষণনীতির কারণেই পাঠ্যপুস্তকে এই পরিবর্তনগুলো আনা হয়েছে বলে উদীচী’র বিবৃতিতে বলা হয়। ২০১৮ সালের পাঠ্যপুস্তকে উল্লেখিত লেখকদের বাদ দেয়া লেখাগুলো পুনঃস্থাপন করে সরকার মুক্তিযুদ্ধ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনাধারার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করবে বলে উদীচী আশা করেছিলাম। কিন্তু তা না করে, সরকার জনগণকে চরমভাবে আশাহত করেছে, যার দায় সরকারকে বহন ও ফল ভোগ করতে হবে বলেও বিবৃতিতে সতর্ক করেন উদীচী’ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।