ড্রাগনের শ্রমিকদের মানববন্ধনে সন্ত্রাসী হামলা, মিথ্যা মামলা

Posted: 11 অক্টোবর, 2020

একতা প্রতিবেদন : ড্রাগন গ্রুপ শ্রমিকদের চলমান আন্দোলন দমনে এবার হত্যাচেষ্টার অভিযোগসহ নানান মিথ্যা অভিযোগে মামলা করেছে মালিক পক্ষ। গত ৫ অক্টোবর ঢাকার হাতিরঝিল থানা পুলিশ প্রতারক কারখানা মালিকের এই মামলা গ্রহণ করে। মামলায় গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র’র আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মঞ্জুর মঈনসহ কারখানার আন্দোলনরত আরো ১৫জন শ্রমিকের নাম আসামী হিসেবে উল্লেখ করা করা হয়েছে। এছারাও অজ্ঞাতনামা আরো ৩৫জন শ্রমিককে অভিযুক্ত করা হয়েছে। ড্রাগন সোয়েটার শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধে শ্রম মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটির সিদ্ধান্ত অনুসারে গত ৪ অক্টোবর ২০২০ কারখানায় শ্রম মন্ত্রণালয়ের একটি তদন্ত অনুষ্ঠিত হয়। আন্দোলনরত ড্রাগন সোয়েটার কারখানার শ্রমিকরা ওইদিন মুখে কালো কাপড় বেধে কারখানা থেকে আবুল হোটেল পর্যন্ত একটি শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসূচির ডাক দেয়। সেদিন সকাল থেকেই মালিকপক্ষ স্থানীয় সন্ত্রাসীদের লাঠিসোঁটা ও দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ কারখানার সামনে মোতায়েন করে রাখে। শ্রমিকরা জড়ো হতে শুরু করলে তারা ফেস্টুন কেড়ে নেয়া, মারধর ও হুমকি ধামকি দেয়। শ্রমিকরা পরে মালিবাগ রেলগেটে মানববন্ধন শুরু করে। শ্রমিকদের শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনে বেলা সাড়ে ১১টায় মালিকের লেলিয়ে দেয়া সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। তারা লাঠিশোঠা, চোখা রড নিয়ে নির্বিচারে শ্রমিকদের মারধোর করে। এতে অন্তত ১২ জন শ্রমিক আহত হয়েছে। আহত শ্রমিকরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হাতিরঝিল থানার পুলিশ হামলাকারীদের একজন কে আটক করেও পরে ছেড়ে দেয়। শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন চলাকালে পুলিশের উপস্থিতিতে সন্ত্রাসীরা এসে শ্রমিকদের ওপর হামলা করা এবং নারী ও বয়স্কসহ শ্রমিকদের বেধড়ক মারধোর করে আহত করার ঘটনায় সেদিন ৪ অক্টোবর রাতে হাতিরঝিল থানায় শ্রমিকরা মামলা করতে গেলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শ্রমিকদের অভিযোগ থেকে নারীদের শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার কথাটি বাদ দিতে এবং পুলিশের উপস্থিতির বিষয়টি উল্লেখ না করতে চাপ দেন। শ্রমিকরা তা না শুনলে তিনি মামলা নিতে অস্বীকৃতি জানান এবং শ্রমিকদের একটি সাধারণ ডায়েরি নথিভুক্ত করে চলে যেতে বলেন। শ্রমিকরা মামলা গ্রহণ না করায় প্রতিবাদ জানিয়ে থানা থেকে চলে আসে। পরদিন জানা যায়, ওই রাতে মালিকপক্ষ শ্রমিক নেতৃবৃন্দসহ আহত শ্রমিকদের নামে উল্টো মামলা দায়ের করা হয়েছে। ড্রাগন গ্রুপ শ্রমিক আন্দোলনের অন্যতম নেতা কারখনার শ্রমিক আব্দুল কুদ্দুস বলেন, থানা শ্রমিকপক্ষের মামলা গ্রহণ না করার অভিযোগসহ শ্রমিকরা নিম্ন আদালতে মামলা দাখিল করার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। শ্রমিকের পাওনা আদায়ের সংগ্রাম জোরদার করতে সকল শিল্প এলাকায় গার্মেন্ট টিইউসি আন্দোলনের কর্মসূচিও ঘোষণা করেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।