মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলনে চা শ্রমিকরা

Posted: 11 অক্টোবর, 2020

একতা প্রতিবেদক : শারদীয় দুর্গা উৎসবের আগে মজুরি বৃদ্ধি ও বকেয়া বোনাস পরিশোধের দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন ও দুই ঘণ্টা কর্মবিরতি পালন করেছে ২১ চা বাগানের শ্রমিকরা। এছাড়া মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ৪০ বাগান, জুড়ীর ১৬ বাগান ও কমলগঞ্জের ২৩ চা বাগানের শ্রমিকরা কর্মবিরতি, বিক্ষোভসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছেন। গত ৭ অক্টোবর সিলেটের লাক্কাতুরা চা বাগানের প্রধান ফটকে বাগানের পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি শিতুল লোহারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল নায়েকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন সিলেট ভ্যালির কার্যকরী পরিষদের সভাপতি রাজু গোয়ালা। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ১০২ টাকা মজুরি বৃদ্ধি করার জন্য ২২ মাস আগে একটি চুক্তি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখন পর্যন্ত তা হয়নি। সরকারের মজুরি বোর্ডের সাথে পাঁচবার বৈঠক হলেও মজুরি বাড়ানোর ব্যাপারে কোনো সুরাহা হয়নি। বিশ্বের কোথাও এত স্বল্প মজুরি নেই। করোনার সময়েও শ্রমিকরা বাগানের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। এ দেশের অর্থনৈতিক চাকাকে সচল রেখেছেন। কিন্তু তারা এর বিনিময়ে কিছু পাননি। শারদীয় দুর্গাপূজার আগে ২২ মাসের বকেয়া বোনাস পরিশোধ ও মজুরির নতুন চুক্তি বাস্তবায়নের জোর দাবি জানান বক্তারা। দাবি না মানলে লাগাতার ২ ঘণ্টা কর্মবিরতি পালনেরও হুমকি দেন তারা। কর্মসূচিতে আরও বক্তব্য রাখেন লাক্কাতুরা চা বাগানের শ্রমিক নেতা নিরেণ গোয়ালা, লুটন গোয়ালা, বিপন গোয়ালা, মালনী ছড়া চা বাগনের পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি জিতেন সবর, জয় মাহাত্ম পুর্ম্মি, হৃদেশ মুদি, দিলীপ বাউঁড়ী। শ্রীমঙ্গল উপজেলার ভাড়াউড়া, ফুলছড়া, কেজুরিছড়া, রাজঘাট, আমরাইলছড়া, জাগছড়াসহ ৪০টি চা বাগান শ্রমিকরা কর্মবিরতি পালন করেছে। ৭ অক্টোবর এ কর্মবিরতি পালনের সময় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বালিশিরা ভ্যালি সভাপতি বিজয় হাজরা, ভাড়াউড়া চা বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি নূর মোহাম্মদ। জুড়ীর ১১টি চা বাগান ও পাঁচটি ফাঁড়ি বাগানে একযোগে কর্মবিরতি পালন করা হয়। উপজেলার বিভিন্ন চা বাগানে বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালে চা শ্রমিক ইউনিয়নের জুড়ী ভ্যালি শাখার সভাপতি কমল বুনার্জী, সাধারণ সম্পাদক রতন কুমার পাল, সহসভাপতি শ্রীমতি বাউরী, কাপনা পাহাড় চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি প্রমেশ বাউরী, রত্না চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি সুমন ঘোষসহ বিভিন্ন বাগান পঞ্চায়েত নেতারা বক্তব্য দেন। কমলগঞ্জ উপজেলার ২৩টি চা বাগানে একযোগে দুই ঘণ্টা কর্মবিরতি ও মানববন্ধন হয়েছে। আলীনগর চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি গণেশ পাত্রের সভাপতিত্বে ও চা শ্রমিক উত্তম কৈরীর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন চা শ্রমিক নেতা সজল কৈরী, জনার্ধন লোহার, সঞ্চয় চৌহান। মানববন্ধনে আলীনগর চা বাগানের সব শ্রমিক অংশ নেন। হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার ২৪টি চা বাগানের শ্রমিকরাও মানববন্ধন এবং দুই ঘণ্টা কর্মবিরতি পালন করেছে। চান্দপুর চা বাগানের মেইন ফটকে বাগানের পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি সাধন সাঁওতালের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক নৃপেন পাল, আদিবাসী ফোরামের সভাপতি স্বপন সাঁওতাল, কাঞ্চন পাত্র, সন্ধ্যা নায়েক।