সাংবাদিক নির্যাতন গুমের বিরুদ্ধে দরকার গণপ্রতিরোধ

Posted: 22 মার্চ, 2020

একতা প্রতিবেদক : বাংলা ট্রিবিউন ও ঢাকা ট্রিবিউনের কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি সাংবাদিক আরিফুল ইসলাম রিপনের উপর ডেপুটি কমিশনার সুলতানা পারভীনের নির্দেশে যে অমানবিক নির্যাতন করা হয় তার বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানান সিপিবি নেতৃবৃন্দ। তারা বলেন, সংবাদ প্রকাশের কারণে এক বছর পর ডিসি’র নির্দেশে অবৈধভাবে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে মিথ্যা অভিযোগ তুলে বাড়ির দরজা ভেঙ্গে পরিবারের সদস্যদের সামনে থেকে সাংবাদিককে তুলে নিয়ে আসা ঔপনিবেশিক যুগের কথা মনে করিয়ে দেয়। বর্তমান প্রশাসন আমলারা অনেকেই সরকারের প্রশ্রয়ে দুর্বিনীত ও দুর্বৃত্তের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে। সরকারি সম্পত্তি ডিসির নামে নামকরণের খবর প্রকাশ করায় ডিসি বাংলোয় নগ্ন করে রিপনের উপর যে নির্যাতন করা হয়েছে তা মধ্যযুগীয় বর্বরতা ও ফ্যাসিস্ট কর্মকাণ্ড। নেতৃবৃন্দ বলেন, শুধুমাত্র প্রত্যাহার করাটা কোন শাস্তি হতে পারে না। তারা ডিসি সুলতানা পারভীন ও অবৈধ মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকারী মেজিস্ট্রেটের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং চাকুরী থেকে অপসারণ দাবি করেন। নব্বইর দশকে এরশাদ স্বৈরাচারবিরোধী ছাত্র আন্দোলন কর্মী ও দেশের বিশিষ্ট আলোকচিত্র সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজল সরকারি দলের নেতৃবৃন্দের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সামাজিক মাধ্যমে সোচ্চার হওয়ায় তাকে গুম করা হয়েছে। কয়েকদিন যাবৎ তিনি নিখোঁজ। নেতৃবৃন্দ বলেন, মত প্রকাশের স্বাধীনতা সংবিধান সম্মত। শুধুমাত্র মত প্রকাশের জন্য কোন মানুষ গুম হয়ে যাবে তা কাম্য নয়। এটা কেবল সম্ভব ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্রে। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে সাংবাদিক কাজলকে খুঁজে বের করে নিরাপদে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। নেতৃবৃন্দ দেশবাসীকে মানুষের মৌলিক অধিকার ক্ষুণ্নকারী সরকার ও প্রশাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে রাজপথে নেমে আসার উদাত্ত আহ্বান জানান।