বিদ্যুতের দাম ফের বাড়ানোর প্রস্তাব

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : ঘাটতি পুষিয়ে নিতে পাইকারিতে ইউনিট প্রতি বিদ্যুতের দাম ২৩ দশমিক ২৭ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (বিপিডিবি)। গত ২৮ নভেম্বর কারওয়ানবাজারে টিসিবি অডিটোরিয়ামে বিদ্যুতের পাইকারি মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) গণশুনানিতে এ প্রস্তাব দেওয়া হয়। যদিও প্রস্তাব পর্যালোচনা করে বিইআরসি বলছে, সরবরাহ ব্যয় সমন্বয় করতে ইউনিট প্রতি ১৯ দশমিক ৫০ শতাংশ দাম বাড়ানো যেতে পারে। শুনানিতে পিডিবির জিএম (বাণিজ্যিক কার্যক্রম) কাউসার আমীর আলী বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে পাইকারিতে বিদ্যুতের সরবরাহ ব্যয় ছিল ৫ টাকা ৮৩ পয়সা। এখন বিদ্যুতের পাইকারি মূল্য ৪ টাকা ৭৭ পয়সা। এর ফলে গত অর্থবছরে ৬ হাজার ৮৬২ কোটি ৩০ লাখ টাকা লোকসান গুণতে হয়েছে। দাম বাড়ানোর কারণ হিসাবে বৈদেশি মুদ্রার বিপরীতে টাকার অবমূল্যায়ন, গ্যাসের মূল্য ৪১ শতাংশ বৃদ্ধি, কয়লার ওপর নতুন করে ৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ, বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যয় বৃদ্ধি ও কোনো কোনো বিতরণ সংস্থা কর্তৃক সময়মতো টাকা পরিশোধ না করার কথা বলা হয়েছে। প্রস্তাব মূল্যায়ন কমিটির পক্ষে বিইআরসি বলছে, তাদের পর্যালোচনায় পাইকারি মূল্য ৯৩ পয়সা বা ১৯ দশমিক ৫০ শতাংশ বাড়ানো যেতে পারে। ক্যাবের উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম, মোবাইল গ্রাহক সমিতির সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ, সিপিবি নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স, বিএনপি নেতা সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিজিএমইএর প্রতিনিধি আনোয়ার হোসেন চৌধুরী, বিকেএমইএর সজিব হোসেন, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকিসহ আরও কয়েকজন ভোক্তা প্রতিনিধি দাম বাড়ানোর প্রস্তাবের বিরোধিতা করে বক্তব্য দেন। বিদ্যুতের উৎপাদন সক্ষমতা চাহিদার চেয়ে দ্বিগুণ হলেও সঙ্কটকালীন সময়ের জন্য বিশেষ আইনের অধীনে চালু হওয়া কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো এখনও সচল আছে। সময়িকভাবে চালু করা এসব বিদ্যুৎকেন্দ্র কেন বন্ধ করে ব্যয় কমানো হচ্ছে না, শুনানিতে অংশ নিয়ে সেই প্রশ্ন তোলেন কয়েকজন। ক্যাবের উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, ‘কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর প্রয়োজন না থাকলেও সেগুলোকে বসিয়ে বসিয়ে ক্যাপাসিটি চার্জ বাবদ অর্থ দেওয়া হচ্ছে। এই কারণেই পিডিবির ঘাটতি বাড়ছে। এ ধরনের কাজের দায়ভার চাপানো হচ্ছে জনগণের ওপর।’ চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পরেও এসব বিদ্যুৎকেন্দ্র সচল রাখার জন্য নতুন করে চুক্তি নবায়ন করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..