বিক্ষোভকারীদের দমাতে রাজধানী অবরোধ সিসির

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা বিদেশ ডেস্ক : মিশরের তাহরির স্কয়ারে বিক্ষোভ দমাতে মিসরের রাজধানী কায়রোর কেন্দ্রীয় এলাকা অবরোধ করে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন মিশরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তাহ আল সিসি। ২৭ সেপ্টেম্বর তার আট বছরের শাসনকালের ইতিহাসে সবচেয়ে কঠোর নিরাপত্তা জারি করা হয়। বিক্ষোভকারী ও বিরোধীদের তাহরির স্কয়ার থেকে দূরে রাখতে এই কড়াকড়ি আরোপ করেছিলেন সিসি। এদিন, দ্বিতীয় সপ্তাহের মতো সেখানে বিক্ষোভ করার কথা ছিল বিক্ষোভকারীদের। ২০ সেপ্টেম্বর তাহরির স্কয়ারে নজিরবিহীন এক বিক্ষোভ দেখা যায়। সিসির একচ্ছত্র স্বৈরাচারী শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করে হাজার হাজার মানুষ। পুরো বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিল গত সপ্তাহের ওই বিক্ষোভ। এখানে উল্লেখ্য, ২০১১ সালে সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনি মোবারকের বিরুদ্ধে তাহরির স্কয়ার থেকেই বিক্ষোভ শুরু হয়েছিল। পতন হয়েছিল দীর্ঘ সময় মিসর শাসন করা মোবারকের। মিসরীয়দের কাছে স্কয়ারটি বিক্ষোভের অন্যতম স্থান। তাই সেখানে বিক্ষোভের পর টনক নড়ে যায় সিসি প্রশাসনের। বিক্ষোভ দমাতে দ্রুত কঠোর পদক্ষেপ নেন মিসরের প্রেসিডেন্ট। প্রথম বিক্ষোভের পরবর্তী ছয় দিনের মধ্যে বিক্ষোভের আয়োজক, অংশগ্রহণকারী, প্রত্যক্ষদর্শী, সাংবাদিক, আইনজীবীসহ প্রায় ২০০০ মানুষকে গ্রেপ্তার করা হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়। বিদেশি গণমাধ্যম প্রচার বন্ধ রাখা হয়। বিদেশি সাংবাদিকদের সতর্ক করা হয়। ২৭ সেপ্টেম্বর রাতে তাহরির স্কয়ারে ফের বিক্ষোভের পরিকল্পনা ছিল সিসি-বিরোধীদের। আগ থেকেই এর বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নিয়ে রেখেছিলেন সিসি। এদিন কায়রোজুড়ে বন্ধ ছিল দোকানপাট, রেস্তোরা। রাস্তাগুলো ছিল জনমানবশূন্য। সবখানে মোতায়েন ছিল পুলিশ ও অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনী। রাস্তায় চলাচলকারী প্রত্যেককে একাধিকবার তল্লাশি করা হয়েছে। ঘেঁটে দেখা হয়েছে তাদের ফোন। পুরোপুরি দমিয়ে রাখা হয় কায়রোবাসীদের। তবে দেশের অন্যান্য অঞ্চলে ছোট পরিসরে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সিসির বিরুদ্ধে এই বিক্ষোভের আহ্বান জানান স্পেনে স্বেচ্ছা-নির্বাসনে থাকা ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলি। তিনি সিসি সরকারের বিরুদ্ধে লাখো মানুষের পদযাত্রার আহ্বান জানিয়েছিলেন। ¯েপন থেকে পোস্ট করা কয়েকটি ভিডিওতে আলি বলেন, সিসির প্রাসাদ ও তার জেনারেলদের জন্য কাজ করেছে তার নির্মাণ প্রতিষ্ঠান। এসব কাজে সিসি ও তার সহযোগীরা ব্যবহার করেছে রাষ্ট্রীয় অর্থ। গত সপ্তাহে তার আহ্বানে সাড়া দিয়েই পাঁচ বছরের মধ্যে প্রথম মিসরে উল্লেখযোগ্য সরকার-বিরোধী বিক্ষোভ হয়।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..