রাজপথে বামপন্থি

কাশ্মীরের আত্মনিয়ন্ত্রণের পক্ষে বাংলাদেশের অবস্থান নেবার দাবি

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির মানববন্ধনে পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, আসামসহ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) নিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টি- বিজেপি’র বিভিন্ন স্তরের নেতাদের বাংলাদেশ বিরোধী বক্তব্য চরম ঔদ্ধত্বপূর্ণ, উস্কানীমূলক, সাম্প্রদায়িক এবং বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব ও জাতীয় নিরাপত্তা বিরোধী। আসামসহ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে নাগরিকপঞ্জির বাইরে থাকা ভারতীয়দেরকে যেভাবে বাংলাদেশে ঠেলে দেবার কথা বলা হচ্ছে এবং তাদেরকে বাংলাদেশী অনুপ্রবেশকারী হিসেবে আখ্যা দিয়ে তাদের জন্য যেভাবে বাংলাদেশের ভূখণ্ড দাবি করা হচ্ছে তা বিজেপি নেতাদের বাংলাদেশ বিরোধী আগ্রাসী মনোভাবেরই বহিঃপ্রকাশ। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এসব সাম্প্রদায়িক উস্কানীমূলক তৎপরতার প্রতিবাদ না করার চরম হিন্দুত্ববাদী বিজেপি নেতাদের লাগামহীন বেসামাল ঔদ্ধত্বপূর্ণ বক্তৃতা-বিবৃতি অব্যাহত রয়েছে। তিনি বলেন, কাশ্মীর ও কাশ্মীরের জনগণের বিশেষ অধিকার ও আত্মনিয়ন্ত্রণের মৌলিক প্রশ্নকে এড়িয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীর কর্তৃত্ব ও দখলদারিত্বে কাশ্মীর সংকটের সমাধান হবে না। তিনি বলেন, নির্যাতন, নিপীড়ন, হত্যা, সন্ত্রাসের পথে কাশ্মীরের মুক্তিকামী জনগণের ন্যায্য, গণতান্ত্রিক ও মানবিক আকাংখাকে নস্যাৎ করা যাবে না। তিনি কাশ্মীরে ভারতীয় সেনাবাহিনীর দখলদারিত্বের অবসান ঘটিয়ে কাশ্মীরী জনগণের মতামতের ভিত্তিতে তাদের ভবিষ্যৎ নির্ধারণের আহ্বান জানান। গত ২০ সেপ্টেম্বর বিকালে পার্টির রাজনৈতিক পরিষদের সদস্য বহ্নিশিখা জামালীর সভাপতিত্বে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন বাম জোটের সমন্বয়ক মোশাররফ হোসেন নান্নু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এম. আকতারুজ্জামান, পার্টির রাজনৈতিক পরিষদের নেতা আকবর খান, রাশিদা বেগম, মাহমুদ হোসেন, সজীব সরকার রতন, এ্যাপোলো জামালী, মোফাজ্জল হোসেন মোশতাক, অরবিন্দু বেপারী বিন্দু, রফিকুল ইসলাম অভি প্রমুখ। মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল তোপখানা রোড, বিজয়নগর প্রদক্ষিণ করে সেগুনবাগিচায় পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..