খুলনাসহ দেশব্যাপী নারী-শিশু নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
খুলনা নগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে গত ৪ জুলাই বিকেল ৫টায় সিপিবি নারী সেল, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন ও সমাতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের উদ্যোগে খুলনার পল্লীমঙ্গল স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী শান্ত গং কর্তৃক ধর্ষণসহ দেশব্যাপী নারী-শিশু ধর্ষণ ও প্রকাশ্যে মানুষ হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন ও সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সিপিবি নারী সেল, খুলনার সমন্বয়কারী নারীনেত্রী সুতপা বেদজ্ঞ ও পরিচালনা করেন সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের আহ্বায়ক কোহিদুর আক্তার কনা। মানববন্ধন ও সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন– বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) কেন্দ্রীয় নেতা এস এ রশীদ, জেলা সভাপতি ডা. মনোজ দাশ, সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির খুলনার আহ্বায়ক আয়কর আইনজীবী ফেডারেশনের খুলনা বিভাগীয় সভাপতি এস এম শাহনওয়াজ আলী, সুজনের জেলা সাধারণ সম্পাদক ও সম্মিলিত নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক নাগরিক নেতা অ্যাড. কুদরত-ই-খুদা, ব্লাস্টের সমন্বয়কারী অ্যাড. অশোক কুমার সাহা, সিপিবি মহানগর সভাপতি এইচ এম শাহাদৎ, জেলা সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. এম এম রুহুল আমিন, মহানগর সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মোঃ বাবুল হাওলাদার, ইউসিবিএল নেতা কাজী দেলোয়ার হোসেন, বাসদের জেলা সমন্বয়ক জনার্দন দত্ত নান্টু, সিপিবি জেলা সদস্য মিজানুর রহমান বাবু, সিডিপি বিভাগীয় সমন্বয়কারী ও নিরাপদ সড়ক চাই-নিচসার জেলা সাধারণ সম্পাদক এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, ন্যাপের জেলা মহিলা সম্পাদক নারীনেত্রী মেরীনা যুথি, আইন ও অধিকার বাস্তবায়ন ফোরাম খুলনা বিভাগীয় সভাপতি এস এম দেলোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন রাজু, খুলনা সচেতন নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক শাহ ওয়াহিদুজ্জামান জাহাঙ্গীর, অ্যাড. মেহেদী ইনছার, শ্রমিকনেতা এস এম চন্দন, সিপিবি সোনাডাঙ্গা থানা সভাপতি নিতাই পাল, সাধারণ সম্পাদক রুস্তম আলী হাওলাদার, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের জেলা সাধারণ সম্পাদক জয়ন্ত মুখার্জী, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জেলা সভাপতি উত্তম রায়, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের জেলা সভাপতি সনজিৎ মণ্ডল প্রমুখ। বক্তারা বলেন, খুলনাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে নারী ও শিশু যেভাবে ধর্ষিত হচ্ছে তাতে মনে হয় আইন-শৃঙ্খলা বলে কিছু নেই। মনে হচ্ছে প্রশাসনিক ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। অপরাধীরা বিভিন্ন কৌশলে পার পেয়ে যাচ্ছে। বিচার ব্যবস্থা ধীরগতি, সরকার দলীয় ছত্রছায়ায় এবং আইন-শৃঙ্খলার অবনতির কারণে ধর্ষণ হত্যা বেড়ে চলেছে। তার ধারাবহিকতায় পল্লীমঙ্গল গার্লস স্কুলের ছাত্রী শান্ত গং কর্তৃক ধর্ষণ এরই প্রমাণ। দেশের নারী শিশু ও সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার জন্য আইনের সংস্কার আনতে হবে। অপরাধীদেরকে শনাক্ত করে দ্রুত বিচার আইনের আওতায় এনে বিচার করতে হবে। বিজ্ঞপ্তি

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..