হরতালের সমর্থনে সারাদেশে প্রচার অভিযান

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

চট্টগ্রামে হরতাল সফল করার লক্ষ্যে বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমাবেশে নেতৃবৃন্দ
একতা প্রতিবেদক : জনস্বার্থ উপেক্ষা করে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে, সিলিন্ডার গ্যাসের দাম কমানোর দাবিতে এবং জনদুর্ভোগের বাজেটের প্রতিবাদে বাম গণতান্ত্রিক জোট আহূত আগামী ৭ জুলাই ২০১৯, রোববার দেশব্যাপী অর্ধদিবস (৬টা-২টা) হরতাল সফল করতে গত ৫ জুলাই স্থানীয়ভাবে ঢাকা মহানগরের গুলিস্তান, মতিঝিল, সূত্রাপর, শান্তিনগর, মালিবাগ, খিলগাঁও, মগবাজার, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, কাওরান বাজার, মহাখালী, মিরপুর, ধানমন্ডি, মোহাম্মদপুর এলাকায় প্রচার অভিযান চালানো হয়েছে। এসব এলাকায় পথসভা ও লিফলেটিং করা হয়। পথসভা থেকে আগামী ৭ জুলাইয়ের হরতালকে সফল করার জন্য জনগণকে আহ্বান জানানো হয়। এসময় সাধারণ জনতা স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতালের কর্মসূচিকে স্বাগত জানায়। গত ৩ জুলাই কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকা মহানগরের গুলিস্তান, মতিঝিল, শান্তিনগর, মালিবাগ, খিলগাঁও, মগবাজার, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, কাওরান বাজার, মহাখালী, মিরপুর এলাকায় ট্রাকযোগে প্রচার অভিযান চালানো হয়েছে। সকাল ১১টায় পুরানা পল্টনে কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে প্রচার অভিযান শুরু হয়। এসময় বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক মোশাররফ হোসেন নান্নু, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ (মার্কসবাদী)’র নেতা মানস নন্দী, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আহ্বায়ক হামিদুল হক এবং গণসংহতি আন্দোলনের নেতা বাচ্চু ভূঁইয়া প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সিপিবি’র সহকারী সাধারণ সম্পাদক কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুল্লাহ ক্বাফি রতন, বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা রাজেকুজ্জামান রতন, বাসদ (মার্কসবাদী)’র নেতা ফখরুদ্দিন কবির আতিক প্রমুখ। নেতৃবৃন্দ নগরীর গুলিস্তান, পল্টন ও হাইকোর্ট এলাকায় হরতালের প্রচারে গণসংযোগ করেন। এসময় সাধারণ জনতা স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতালের কর্মসূচিকে স্বাগত জানায় এবং আন্দোলনে শরিক হওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে। হরতালে সমর্থন জানিয়ে জাতীয় কমিটির সমাবেশ : বিশ্ব ঐতিহ্য ও বাংলাদেশের প্রাণ সুন্দরবন বিনাশী প্রকল্প বাতিল এবং গ্যাসের বাড়তি দাম প্রত্যাহারের দাবিতে বাম গণতান্ত্রিক জোটের আহুত ৭ জুলাই অর্ধদিবস (সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত) হরতালের পূর্ণসমর্থন জানিয়ে গত ১ জুলাই বিকাল সাড়ে চারটায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় কমিটি ঢাকা মহানগরের সমন্বয়কারী জুলফিকার আলীর সভাপতিত্বে ও আকবর খানের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক

আনু মুহাম্মদ, সিপিবি ঢাকা মহানগের সম্পাদক খান আসাদুজ্জামান মাসুম, গণসংহতি আন্দোলনের জুলহাসনাইন বাবু, কমিউনিস্ট লীগের শামীম ইমাম, বাসদ (মার্কসবাদী) ফখরুদ্দিন কবীর আতিক, গণফ্রন্টের মোকলেছুর রহমান দুলাল, বাসদ (মাহবুব) আনোয়ার হোসেন, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির মমিনুর রহমান মহসিন প্রমুখ। সমাবেশে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, বাংলাদেশের প্রাণ প্রকৃতি ও জীবন জীবিকা বিরোধী অবস্থান নিয়েছে সরকার। বাংলাদেশের সবচাইতে বড় রক্ষাকবচ, বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবন বিনাশী রামপাল প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকার একগুয়েমী ও প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছে। তার উপর সুন্দরবনের চার কিলোমিটারের মধ্যে তেলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র ও সিমেন্ট কারখানার অনুমোদন দিয়ে সুন্দরবনের মৃত্যু পরোয়ানা ঘোষণা করেছে। অন্যদিকে এলএনজি এলপিজি ব্যবসা ও লুটেরাদের স্বার্থে বারবার গ্যাসের দাম বাড়িয়ে গ্যাস, বিদ্যুৎ, বাসা ভাড়া, পরিবহন, শিল্প পণ্যের দাম বাড়ানো হচ্ছে। জাতীয় কমিটির দাবি অবিলম্বে রামপালসহ সুন্দরবন বিনাশী সকল প্রকল্প বাতিল ও গ্যাসের দাম বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে হবে। দেশের মানুষের বর্তমান ভবিষ্যতের উপর একের পর এক আঘাত করে সরকার দেশি ঋণখেলাপি লুটেরা এবং ভারত-চীন-রাশিয়া-যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন কোম্পানির স্বার্থ দেখছেন। সরকারের এই দেশদ্রোহী তৎপরতার বিরুদ্ধে জাতীয় কমিটি বাম গণতান্ত্রিক জোটের আহুত ৭ জুলাই অর্ধদিবস (সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত) হরতালের পূর্ণসমর্থন ব্যক্ত করছে। গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কে›ন্দ্রের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ : জনস্বার্থ উপেক্ষা করে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি এবং জনদুর্ভোগের বাজেটের প্রতিবাদে দেশের প্রগতিশীল রাজনৈতিক দলসমূহের মোর্চা বাম গণতান্ত্রিক জোট আহূত আগামী ৭ জুলাই, রবিবার দেশব্যাপী অর্ধদিবস হরতালের সমর্থনে গত ৫ জুলাই বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র। বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র’র সভাপতি শ্রমিকনেতা অ্যাডভোকেট মন্টু ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক শ্রমিকনেতা জলি তালুকদার বক্তব্য রাখেন। সমাবেশ থেকে গার্মেন্ট শ্রমিকসহ দেশের আপামর শ্রমিক-মেহনতি মানুষের প্রতি হরতাল সফল করার জন্য আহ্বান জানানো হয়। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, শ্রমিকরা বাজেটে রেশন, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসার জন্য বরাদ্দের দাবি জানিয়েছিল। সরকার শ্রমিকদের দাবির প্রতি কর্ণপাত করেনি। উপরন্তু মালিকদের মুনাফার হার বৃদ্ধির সহায়ক বাজেট পাশ করেছে। সরকার একদিকে শ্রমিক-মেহনতি মানুষের জীবনকে দুর্বিসহ করে তুলেছে অপরদিকে জনগণের পকেট কেটে কতিপয় কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান ও মালিকগোষ্ঠীর সম্পদের পাহাড় গড়ে তোলার ব্যবস্থা করেছে। এরই সর্বশেষ পদক্ষেপ

গ্যাসের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধি। নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, গার্মেন্ট শ্রমিকরা এদেশের খেটে খাওয়া মেহনতি মানুষের সবচেয়ে অগ্রসর ও সংগঠিত অংশ। তারা সরকারের এই গণবিরোধী সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তুলবে। নেতৃবৃন্দ ৭ জুলাইয়ের হরতাল সফল করতে এবং শ্রমিক জনতার বিরুদ্ধে সরকারের আক্রমণ প্রতিরোধ করতে শ্রমিক-কৃষক-নিম্নবিত্ত-মধ্যবিত্ত জনসাধারণকে রাজপথে নেমে আসার আহ্বান জানান। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন গার্মেন্ট টিইউসির কার্যকরি সভাপতি কাজী রুহুল আমীন, সাংগঠনিক সম্পাদক কেএম মিন্টু, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মঞ্জুর মঈন, দপ্তর সম্পাদক জয়নাল আবেদীন প্রমুখ। সমাবেশের পূর্বে হরতালের সমর্থনে শ্রমিকদের একটি বিক্ষোভ মিছিল প্রেসক্লাব ও পল্টন এলাকা প্রদক্ষিণ করে। এছাড়াও বিকেলে দেশের সকল গার্মেন্ট শিল্পাঞ্চলে গার্মেন্ট টিইউসির উদ্যোগে হরতাল সমর্থনে প্রচার মিছিল ও গণসংযোগ অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা শহরের থানায়-থানায় সিপিবি’র প্রচার মিছিল ও লিফলেট বিতরণ : গত ৫ জুলাই বিকালে সিপিবি ঢাকা কমিটির উদ্যোগে ঢাকা শহরের বিভিন্ন থানায়-থানায় ও সাভারে হরতালের সমর্থনের পথসভা ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা শহরের সূত্রাপুর, কাফরুল, মিরপুর, পল্টন, মোহাম্মদপুর, ধানমন্ডি, খিলগাঁও, তেজগাঁও, লালবাগ, সাভারে অনুষ্ঠিত পথসভায় বক্তব্য রাখেন সিপিবি ঢাকা কমিটির সভাপতি মোসলেহ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ডা. সাজেদুল হক রুবেল, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য জাহিদ হোসেন খান, সাদিকুর রহমান শামীম, সুকান্ত শফি কমল, ঢাকা কমিটির সদস্য শংকর আচার্য, মনিষা চক্রবর্তী, আবু তাহের বকুল, মুর্শিকুল ইসলাম শিমুল, কে এম মিন্টু, শহিদুল ইসলাম, সূত্রাপুর থানার সাধারণ সম্পাদক বিকাশ সাহা, খিলগাঁও থানায় যুব ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক হাফিজ আদনান রিয়াদ, যুব ইউনিয়ন ঢাকা নগর সভাপতি হাবীব ইমন, সিপিবি মিরপুর থানার সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মামুন কবীর, মোহাম্মদপুর থানার সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আহম্মেদ উজ্জ্বল, পল্টন থানা সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব সাহা, কাফরুল থানার সাধারণ সম্পাদক রাসেল ইসলাম সুজন, ১৪ নং ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আজীম, সাভার থানায় সাজেদা বেগম সাজু প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। বিভিন্ন থানায় পথসভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, গ্যাসের দাম বৃদ্ধি অযৌক্তিক। বিশ্ব বাজারে গ্যাসের দাম যেখানে কমছে সেখানে বাংলাদেশে দফায় দফায় গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করে লুটেরাদের স্বার্থে জনগণের পকেট কাটা হচ্ছে। নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের দুর্নীতি ও ভুল নীতির দায় জনগণ নিবে না। তাই আগামী ৭ জুলাইয়ের হরতাল সফল করার মাধ্যমে সরকারকে গ্যাসের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহারে বাধ্য করতে হবে। বক্তাগণ সচেতন জনগণের প্রতি শান্তিপূর্ণ অর্ধদিবস হরতাল সফল করার আহবান জানান। এর আগে গত ১ জুলাই জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সিপিবি ঢাকা কমিটির উদ্যোগে গ্যাসের

মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। সিপিবি ঢাকা কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর অন্যতম সম্পাদক আব্দুল কাদের এর সভাপতিত্বে ও ঢাকা কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য খান আসাদুজ্জামান মাসুমের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম, সিপিবি’র সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, ঢাকা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ডা. সাজেদুল হক রুবেল ও ঢাকা কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য জাহিদ হোসেন খান প্রমুখ। সমাবেশে বক্তারা বলেন, সরকার জনগণের মতামতের তোয়াক্কা না করে লুটেরাদের স্বার্থ রক্ষায় এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনকে দিয়ে দফায় দফায় গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি করিয়ে চলছে গত ৩০ জুন, কমিশন সংবাদ সম্মেলন করে ১ বার্নার চুলার দাম ৯২৫ টাকা ও দুই বার্নার চুলার জন্য ৯৭৫ টাকা মূল্য ধার্য্য করেছেন, যা গণবিরোধী সিদ্ধান্ত। জনগণের পকেট কেটে লুটেরাদের স্বার্থে সরকারের এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বক্তারা আরও বলেন, গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির ফলে সকল কিছুর মূল্যবৃদ্ধি পাবে যা নিম্ন আয়ের মানুষের চরম ভোগান্তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। জনগণের আয় বৃদ্ধি হয়নি অথচ প্রতিদিন জীবনযাত্রার ব্যয় বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে সমাজে চরম অর্থ বৈষম্যের শিকার হচ্ছে গরিব মেহনতি নিম্ন আয়ের মানুষ। খুলনা বাম গণতান্ত্রিক জোটের প্রচার মিছিল : গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে, সিলিন্ডার গ্যাসের দাম কমানোর দাবিতে এবং জনদুর্ভোগের বাজেটের প্রতিবাদে ৭ জুলাই রবিবার দেশব্যাপী অর্ধদিবস (ভোর ৬টা থেকে দুপুর ২টা) হরতাল সফল করার আহ্বান জানিয়ে গত ৪ জুলাই বিকেল ৬টায় প্রচার-মিছিল করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট, খুলনা জেলা শাখা। পিকচার প্যালেস মোড় থেকে শুরু হয়ে মিছিলটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিল শেষে পিকচার প্যালেস মোড়ে সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাম গণতান্ত্রিক জোট, খুলনা জেলা সমন্বয়ক ও ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের খুলনা জেলা কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য কাজী দেলোয়ার হোসেন। সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন, সিপিবি কেন্দ্রীয় সদস্য এস এ রশীদ, বাসদ জেলা সমন্বয়ক জনার্দন দত্ত নাণ্টু, ইউসিএলবি খুলনা জেলা কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মোস্তফা খালিদ খসরু, সিপিবি খুলনা মহানগর সভাপতি এইচ এম শাহাদৎ, মিজানুর রহমান বাবু প্রমুখ। সমাবেশে বক্তারা বলেন, বাজেটে নানা ধরনের কর, ভ্যাট আরোপ ও মূল্যবৃদ্ধিতে জনগণ দিশেহারা। এ অবস্থায় সরকার অযৌক্তিকভাবে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি করেছে। এতে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার খরচ বেড়ে যাবে। গণশুনানীতে দেখা গেছে কোম্পানিগুলো লাভজনক। গ্যাস উন্নয়ন ও নিরাপত্তা তহবিলে হাজার হাজার কোটি টাকা পড়ে আছে। দুর্নীতি আর অপচয়ে গ্যাস খাত বিপর্যস্ত। গ্যাস অনুসন্ধানে ও উত্তোলনে কার্যকর কোনো উদ্যোগ নেই। জনগণের পকেট কেটে ব্যবসায়ী এবং দুর্নীতিবাজদের পকেট ভারী করার জন্যই সরকার

গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি করেছে। অথচ সারা বিশ্বে জ্বালানীমূল্য এখন নিম্নগামী। তাই ৭ জুলাই রবিবার অর্ধদিবস হরতাল সফল করে সরকারের এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত প্রতিরোধ করতে নেতৃবৃন্দ জনগণের প্রতি আহ্বান জানান। রংপুর বাম গণতান্ত্রিক জোটের সভা: বাম গণতান্ত্রিক জোট রংপুর জেলার উদ্যোগে ৬ জুলাই বাসদ অফিসে জোট সমন্বয়ক বাসদ নেতা কমরেড আব্দুল কুদ্দুসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন, বাসদ (মার্কসবাদী) জেলা সমন্বয়ক আনোয়ার হোসেন বাবলু, সদস্য আবু রায়হান বকশী, সিপিবি মহানগর সাধারণ সম্পাদক রাতুজ্জামান রাতুল, জেলা সদস্য মহসিন আলী, বাসদের জেলা সদস্য অমল সরকার, যুগেশ ত্রিপুরা প্রমুখ। নেতৃবৃন্দ সরকারের অযৌক্তিক এবং জনস্বার্থ বিরোধী গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানান। গ্যাস খাত শতশত কোটি টাকা লাভে থাকার পরও ৩২.৮ শতাংশ মূল্য বৃদ্ধির ঘটনায় নেতৃবৃন্দ তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। অবিলম্বে গ্যাসের বর্ধিত মূল্য প্রত্যাহার দাবি জানান। ৭ জুলাই সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত অর্ধদিবস হরতাল পালনের জন্য সর্বস্তরের জণগণের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান। চট্টগ্রামে বাম জোটের সমাবেশ ও গণসংযোগ : গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে ৭ জুলাই দেশব্যাপী আধাবেলা (৬টা-২টা) পর্যন্ত হরতাল এর সমর্থনে গত ৪ জুলাই নতুন ব্রীজ চত্বরে সমাবেশ ও গণসংযোগ করেছে জোটের নেতাকর্মীর। এই সময় উপস্থিত ছিলেন সিপিবি কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য শ্রমিক নেতা মৃণাল চৌধুরী, গণসংহতি আন্দোলন চট্টগ্রাম জেলার সমন্বয়কারী হাসান মারুফ রুমি, সিপিবি চট্টগ্রাম জেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল নবী, বাসদ চট্টগ্রাম জেলার ইনচার্জ আল কাদেরী জয়, বাসদ (মার্ক্সবাদী) চট্টগ্রাম জেলার নেতা শফিউদ্দিন কবির আবিদ, সিপিবি নেতা অমৃত বড়ুয়া, বাসদ নেতা আকরাম হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সমাবেশে বক্তারা বলেন, সরকারের ভুল নীতি, দুর্নীতি ও লুটপাটের দায় জনগণ নেবে না। বিইআরসি একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান। তাদের দায়িত্ব হলো জ্বালানি বিষয়ে জনগণের ওপর সরকার বা অন্য কেউ যাতে অযৌক্তিক, অন্যায় কিছু চাপিয়ে দিতে না পারে, সে বিষয়টি দেখা। আইনে আছে, গ্যাস ও বিদ্যুৎ কোম্পানিগুলো লাভজনক অবস্থায় থাকলে দাম বাড়ানো যাবে না। বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, বিইআরসি তার আইনি অবস্থান পরিহার করে জনগণের স্বার্থ না দেখে সরকারের দুর্নীতি, লুটপাট ও ভুল নীতির সমর্থনে কাজ করছে। ৬টি গ্যাস কোম্পানির মধ্যে ৫টিই লাভজনক। ১টি সঞ্চালন প্রতিষ্ঠান লাভজনক থাকার পরও নতুন করে সরকারি হুকুমে দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দিয়েছে, যা জনগণের প্রতি বিইআরসির বিশ্বাসঘাতকতা। এছাড়া চট্টগ্রাম শুভপুর বাস টার্মিনালের সামনে সমাবেশ ও গণসংযোগ করেছে জোটের নেতাকর্মীর। সভাপতি সভাপত্বি করেন সিপিবি’র সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য উত্তম চৌধুরী, বক্তব্য রখেন গণমুক্তি

ইউনিয়নের সভাপতি রাজা মিয়া, গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক হাসান মারুফ রুমী, বাসদ (মার্ক্সবাদী) চট্টগ্রাম জেলার সদস্য সচিব আপু দাশ গুপ্ত, সিপিবি জেলা সদস্য রাহাতউল্লাহ জাহিদ, বাসদ চট্টগ্রাম জেলা ইনচার্জ আল কাদরী জয়, সভা পরিচালনা করেন বাসদ আকরাম হোসেন । বহদ্দারহাট মোড়ে বাম জোটের সমাবেশ : বাম গণতান্ত্রিক জোট, চট্টগ্রাম এর নেতৃবৃন্দ বলেছেন, জনগণের মতামত উপেক্ষা করে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে সরকারকে বাধ্য করা হবে। তাঁরা বলেন, মূল্যস্ফীতির বিশাল বাজেটে ঘাটতি হতে পারে অনুমান করে সরকার দূর্নীতি বন্ধ না করে অভ্যন্তরীণ আয় বৃদ্ধির লক্ষ্যে গ্যাসের দাম বাড়াবার গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জনগণ ইতিমধ্যে শুধু বিক্ষুব্ধ হয়নি, সরকারের অভ্যন্তরে ও এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত হয়েছে। বামজোট নেতারা বলেন, বহি র্বিশ্বে তেল-গ্যাসের দাম বাড়ালেও বাংলাদেশে বাড়ে, বহির্বিশ্বে যখন কমে তখনও বাংলাদেশে বাড়ে। এর মূল কারণ, সরকারের দূর্নীতি ছাড়া আর কিছুই নয়। তাঁরা অবিলম্বে গ্যাসের বর্ধিতমূল্য প্রত্যাহারে বাধ্য করতে ৭ জুলাই রবিবার ৬-২ টা দেশব্যাপী শান্তিপূর্ণ সর্বাত্মক হরতাল সফল করতে জনগনের প্রতি আহবান জানান। সিপিবি চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমন্বয়ক মৃণাল চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাসদ (মার্কসবাদী) সদস্যসচিব অপু দাশগুপ্ত, সিপিবি নেতা অমৃত বড়ুয়া, বাসদ নেতা হেলাল উদ্দিন কবীর এবং পরিচালনা করেন সিপিবি নেতা রাহাতউল্লাহ্ জাহিদ। পরে হরতালের সমর্থনে একটি মিছিল রাজপথ প্রদক্ষিণ করে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গণসংযোগ ও পথসভা : গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে ৭ জুলাই রবিবার সকাল ৬ টা থেকে দুপুর ২ টা পর্যন্ত হরতাল সফল করার জন্য গণসংযোগ ও পথসভা অব্যাহত আছে। হরতাল সফল করার জন্য গত ৫ জুলাই সকালে সড়ক বাজার, নিউ মার্কেট, টান বাজার, আনন্দ বাজার, স্বর্ণ পট্টিতে গণসংযোগ করে প্রচার পত্র বিতরণ করা হয়। বিকাল ৫টা থেকে শহরের প্রধান প্রধান মোড়ে অর্থাৎ মুক্তমঞ্চ প্রাঙ্গণ, প্রেসক্লাব ও লোকনাথ দিঘীর পারে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, লুটেরাদের পকেট ভারী করার জন্য গ্যাসের দাম বাড়িয়ে জনগণকে ফতুর করার সিদ্ধান্ত জনগণ মানে না। নেতৃবৃন্দ বলেন, গ্যাসের দাম বাড়লে বিদ্যুৎ, সার, গণপরিবহন ভাড়া সহ সকল নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বাড়বে, দেশের শিল্প কারখানা হুমকীর সম্মুখীন হবে। দেশ হয়ে যাবে আমদানী নির্ভর। নেতৃবৃন্দ জনগণকে এ গণবিরোধী সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ৭ জুলাই রবিবার সকাল ৬ টা থেকে দুপুর ২ টা পর্যন্ত হরতাল সফল করার আহ্বান জানান। পথসভায় বক্তব্য রাখেন কমিউনিস্ট পার্টির জেলা কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার মো. ফিরোজ, সাধারণ সম্পাদক সাহিদুল ইসলাম, সহ-সাধারণ সম্পাদক আছমা খানম, জেলা কমিটির সদস্য অসিত পাল, আহমেদ হোসেন, আল মামুন প্রমুখ।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..