প্রকৃত উপকারভোগীরা বঞ্চিত

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
শেরপুর সংবাদদাতা : ইসলামপুর উপজেলার আট নম্বর পলবান্ধা ইউনিয়নের বাটিকামারী গ্রামে সম্প্রতি কর্মসৃজন প্রকল্পের টাকা হরিলুটের এক বিশাল অভিযোগ পাওয়া গেছে। ২০১৭-১৮ ও ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে অতি দরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত কর্মসৃজন প্রকল্পে ৪০-১০০ দিনের কাজের টাকা কাজ না করেই স্থানীয় অগ্রণী ব্যাংক থেকে কৌশলে উত্তোলন করেছে। এতে স্থানীয় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক কর্মীসহ সমাজের রাঘব-বোয়ালেরা জড়িত বলে জানা যায়। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, যারা এ কাজের সুবিধাভোগী অতিদরিদ্র জনগোষ্ঠী তাদের কাজ না দিয়ে মুখচেনা, ধনী, একই পরিবারের একাধিক ব্যক্তিবর্গের নামে প্রকল্পের টাকা উত্তোলনের সুযোগ সৃষ্টি করেছে। যা প্রকল্প আইন পরিপন্থি। ধনী সুবিধাভোগীর সংখ্যা ২৭ ও একই পরিবারের একের অধিক সুবিধাভোগী প্রায় ১৬ জন। বাটিকামারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উত্তর পাশের রাস্তা গর্ত ভরাট ও পাকা রাস্তা হতে বেলালের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা মেরামত, বাটিকামারী আকন্দপাড়া পাকা রাস্তা হতে ফজল হকের বাড়ি পর্যন্ত কাঁচা রাস্তার উন্নয়ন ও বাটিকামারী কমিউনিটি ক্লিনিক হতে আছর উদ্দিনের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা উন্নয়ন ও মেরামতে এক পয়সারও কাজ হয় নাই। প্রকল্পগুলির বিপরীতে টাকা ধরা ছিল পাঁচ লাখ ৫০ হাজার সাতশ সাত টাকা, ২৮ লাখ ২০ হাজার দুইশ ৬৯ টাকা, ৫৭ হাজার ৭০৭ টাকা। ভাঙা রাস্তা ও বৃষ্টির পানির তোড়ে ভেঙে যাওয়া ড্রেন দৃশ্যমান। মানুষের চলাচলে অবর্ণণীয় দুর্ভোগ সত্ত্বেও প্রভাবশালীদের ভয়ে সাধারণ মানুষ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। প্রকল্পগুলোতে গিয়ে দেখা গেল ভাঙাচোরা রাস্তা, ড্রেন নেই, কোথাও উঁচু, কোথাও নিচু। সড়ক সংযোগও নেই। কাজের সাইনবোর্ডও দেখা যায়নি। এ ব্যাপারে স্থানীয় জন সাধারণের সঙ্গে কথা বললে, তারা প্রভাবশালীদের ভয়ে মুখ খুলতে রাজি হয়নি। অভিযোগ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, বাদী তার অভিযোগ উঠিয়ে নিয়ে গেছেন। তবে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..