লিচু...

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : এটাকে খারাপভাবে নেওয়ার কিছু নাই। ছাত্রলীগের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলেপেলেরা একটা বাগানের সব লিচু সাবাড় করে দিয়েছে। গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ৭ মে রাতে বিনা অনুমতিতে ওই বাগানে লিচু পাড়তে গেলে ছাত্রলীগের আট নেতাকর্মীকে মারধর করে বাগানের প্রহরীরা। পরে এ নিয়ে মামলা হয়। মামলার ভয়ে প্রহরীরা বাগানে না এলে এই সুযোগে গত ৯ মে ছাত্রলীগের নেতাকমীরা গিয়ে বাগানের সব লিচু পেড়ে নিয়ে আসে। বাগানটি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে লিজ নিয়েছিল স্থানীয় এক ব্যবসায়ী। প্রথমত, লিচু খাবারের জিনিস, সেটা ছাত্রলীগ খাওয়ার জন্যই নিয়েছে। কেউ এমন কোনো সাক্ষী দিতে পারে নাই, ছাত্রলীগের ছেলেরা সেই লিচু নিয়ে বিক্রি করে দিচ্ছে। বরং এক সাংবাদিক এক ছাত্রলীগ নেতার নাম জানতে চেয়েছিল তখন তারা তাঁকে বলেছে, ‘নাম দিয়ে কী করবি? লিচু খাইলে খা, নইলে চলে যা’। দ্বিতীয়ত, দেশে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায়। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়েও আওয়ামী লীগ ক্ষমতায়। ফলে ছাত্রলীগ পদাধিকার বলে সেখানে ক্ষমতায় আছে। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাগানের লিচুর মালিক যে পদাধিকার বলেই ছাত্রলীগ এটা নিশ্চয়ই কেউ অস্বীকার করবেন না। কেউ যদি বাগান লিজ নিয়েও থাকে, ছাত্রলীগ সর্বাধিকার বলেই সেই লিচু তছরুপ করে দিতে পারে। এখন প্রশ্ন এটা আসতেই পারে, লিচু পাড়ার সময় কেউ কেউ সেখানে রামদা, হকিস্টিক জাতীয় অস্ত্রশস্ত্রও দেখেছে। লিচু পাড়তে তো এসব অস্ত্রের প্রয়োজন হয় না। এই প্রশ্ন শুনে জনৈক ব্যক্তি বলেছেন, ‘যদিও এই বিশ্ববিদ্যালয় ‘হাতুড়ি-পেটার’ জন্য বিখ্যাত তবু হাতুড়ি দিয়ে লিচু পাড়লে লিচু নষ্ট হয়ে যেতে পারে; এজন্যই রামদা নেয়া হয়েছে। কারণ, কে না জানে লিচুর হাড্ডিগুড্ডি মানুষের হাড্ডিগুড্ডির মতো এতো শক্ত না।’

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..