বসতির ভেতরে বিদ্যালয়ের পাশে ইটভাটা

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
যশোর সংবাদদাতা : সব নিয়মনীতি উপেক্ষা করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাশে ঘনবসতি এলাকায় ইটভাটা নির্মাণ করেছেন এক ব্যবসায়ী। যশোরের অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়া পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় এ ইটভাটার কারণে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। ধুলাবালি আর শব্দে পাঠে মনোযোগ দিতে পারছে না শিশুরা। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, নওয়াপাড়া পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বুইকরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে গত নভেম্বরে ইটভাটা নির্মাণ করেছেন নওয়াপাড়া বাজারের ব্যবসায়ী নাসিমুল হক। বর্তমানে সেখানে পুরোদমে ইট তৈরির কাজ চলছে। এ নিয়ে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক বরাবর দেয়া আবেদনপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, ট্রাক, নসিমন, ভটভটিতে করে রাত-দিন মাটি আনা হচ্ছে। ধুলাবালিতে পরিবেশ দূষিত হয়ে শিক্ষার্থীদের কাশি, অ্যালার্জির সমস্যা ও শ্বাসকষ্ট প্রকট আকারে দেখা দিচ্ছে। চলাচলের রাস্তাটিও মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ইটভাটাটি সম্পূর্ণ আবাসিক এলাকায় হওয়ায় আশপাশের বাড়িতে বসবাস করা কঠিন হয়ে পড়েছে। বিকট শব্দে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষে মনোনিবেশ করতে পারছে না। বুইকরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল গফফার বলেন, ধুলাবালিতে শিক্ষার্থীদের অনেক সমস্যা হচ্ছে। তাছাড়া রাস্তার অবস্থা খুবই খারাপ হয়ে গেছে। পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, পৌর এলাকার মধ্যে ইটভাটা করা নিষেধ। তাছাড়া পৌর এলাকার এক কিলোমিটারের মধ্যে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এক কিলোমিটারের মধ্যে এবং ঘনবসতি এলাকার মধ্যেও ইটভাটা করা যাবে না। কিন্তু সব শর্ত লঙ্ঘন করে ইটভাটা স্থাপন করেছেন ব্যবসায়ী নাসিমুল হক। বুইকরা গ্রামের বাসিন্দা রোকনুজ্জামান বলেন, আমরা অভয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), যশোর পরিবেশ অধিদপ্তর ও নওয়াপাড়া পৌরসভা মেয়রের কাছে প্রতিকার চেয়ে ফল পাইনি। বাড়িতে বাস করা যাচ্ছে না। বুইকরা গ্রামের আব্দুর রশিদ বলেন, ভাটার শব্দে রাতেও ঘুমাতে পারছি না। তবে যশোর পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক শেখ মো. নাজমুল হুদা বলছেন, তার কাছে কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেবেন। যদিও এলাকাবাসী গত ১ জানুয়ারি পরিবেশ অধিদপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছে। অভিযোগপত্রটি গ্রহণও করা হয়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শাহিনুজ্জামান বলেন, ভাটার মালিককে কাজ না করার জন্য বলেছি। কিন্তু এখনো কাজ চলছে, একথা জানালে তিনি বলেন, আমি দেখব।
শেষের পাতা
নওগাঁয় ন্যায্য মূল্যের দাবিতে সড়কে সবজি ফেলে প্রতিবাদ
বাগেরহাটে ১৫০ ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যালয়ে পড়ছে শিশুরা
জীবিকায় তাদের একমাত্র সম্বল বাইসাইকেল
৪০ টাকায় বছরজুড়ে কৃষকের ক্ষেতে পানি
শ্রমিক ছাঁটাইয়ের ঘটনায় স্কপের উদ্বেগ
নাব্য সংকটে তিতাস এখন আবাদি জমি
‘শিক্ষাবার্তার ২৮ বছর পথচলা’ সচিত্র গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন
সৌদির সঙ্গে প্রতিরক্ষা চুক্তি সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক
‘উপজেলা নির্বাচন পুরোপুরি অর্থহীন
আমনের ক্ষতি পোষাতে তিস্তার চরে আগাম জাতের ভুট্টাচাষ
কপোতাক্ষ খননের সুফলে বাধা অসমাপ্ত সেতুর ভাঙা পিলার
বগুড়ায় ফুল বিকিকিনির মহোৎসব
এক বিচ্ছিন্ন জনপদের নাম দক্ষিণ চর কালিদাস

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..