হাতুড়ির আঘাত মার্কসের সমাধি ফলকে

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

একতা বিদেশ ডেস্ক : দুষ্কৃতির অসভ্যতার ঘাত পড়ল কার্ল মার্কসের সমাধিতে। লন্ডনের হাইগেট সমাধিক্ষেত্রে মার্কস, তাঁর স্ত্রী জেনি, তাঁদের সন্তান হ্যারির সমাধিতে লাগানো ফলকে হাতুড়ির আঘাত করেছে এক বা একাধিক দুষ্কৃতী। এই ফলকটি ১৮৮১ সালে মার্কসকে সমাধি দেবার সময়ে লাগানো ফলক। পরে ১৯৫৪ সালে তা মার্কসের মূর্তির তলায় এনে নতুন করে লাগানো হয়। দুষ্কৃতীরা এমনভাবেই হাতুড়ির আঘাত করেছে যাতে মার্কসের নামটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এই সমাধিটি গ্রেড-১ তালিকাভুক্ত। কারা এই ঘটনার পিছনে রয়েছে, তা স্পষ্ট নয়। লন্ডনের মেট্রোপলিটান পুলিশ প্রাথমিক তদন্ত করেছে। তবে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি। ব্রিটেনে অতি দক্ষিণপন্থা, নয়া নাৎসিদের তৎপরতা চলছে। এমনই কোনো গোষ্ঠী এই কাজ করে থাকতে পারে বলে আশঙ্কাও করা হচ্ছে। স্থানীয় সময় ৪ ডিসেম¦র বিকালে ঘটনা নজরে এসেছে। উত্তর লন্ডনের হাইগেট সমাধিক্ষেত্রে হাজার হাজার মানুষ যান। দুনিয়ার নানা প্রান্ত থেকে মার্কস-সমাধি দেখতে আসেন অসংখ্য মানুষ। ফ্রেন্ডস অফ হাইগেট সেমেটরির প্রধান অধিকর্তা ইয়ান ডুঙ্গাভেল বলেছেন, নির্দিষ্টভাবে মার্কসকেই আক্রমণ করতে চাওয়া হয়েছে। সমাধিক্ষেত্রে অন্য কোনো ফলকে হাত পড়েনি। মার্কসের দর্শন সম্পর্কে যার যে ধারণাই থাকুক, এই কাজ জঘন্য। সমাধিক্ষেত্রের তত্ত্বাবধায়কদের তরফে জানানো হয়েছে তাঁরা যথাসম্ভব মেরামতির চেষ্টা করবেন। মার্কসের স্মারকের ওপরে আগেও আক্রমণ হয়েছে। ১৯৭০ সালে পাইপ বোমা দিয়ে বিস্ফোরণের চেষ্টা হয়েছিল। সাম্প্রতিককালে কয়েকবার কালি লেপা, একবার মার্কসের মূর্তি টেনে ফেলার চেষ্টাও হয়েছিল। এবারে ফলকের খোদাই করা বেশ কিছু অংশ নষ্ট করতে দুষ্কৃতীরা সফল হয়েছে। মার্বেল পাথর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মার্কসের দ্বিশতবর্ষ পালিত হয়েছে ২০১৮ জুড়ে। এই হাইগেট সমাধিক্ষেত্রেই মার্কসের জীবনকালে সমাধিস্থ করা হয়েছে তাঁর প্রিয়জনদের। স্ত্রী জেনিকেও এখানেই সমাধিস্থ করা হয়েছিল। মার্কসের মৃত্যুর পরে সমাধিক্ষেত্রের পাশে দাঁড়িয়ে যুগান্তরের এই অগ্রপথিক সম্পর্কে বন্ধু এঙ্গেলস বলেছিলেন, সর্বশ্রেষ্ঠ চিন্তাবিদ চিন্তা থেকে বিরত হয়েছেন।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..