শবরীমালা মন্দিরের ভেতরে পা রাখলেন দুই নারী

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

একতা বিদেশ ডেস্ক : দক্ষিণ ভারতের প্রাচীন শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করে ৫০ বছরের কম বয়সী দুই নারী ইতিহাস গড়েছেন। ২ ডিসেম্বর খুব ভোরে পুলিশ পাহারা নিয়ে এই দুই নারী ভগবান আয়াপ্পার মন্দিরে প্রবেশ করেন। এর আগেও অবশ্য এরা দুজন মন্দিরে যাওয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছিলেন। কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন এই দুই নারীর মন্দিরে প্রবেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তাদের দুজনকে যে পুলিশী নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছিল, সেটাও জানিয়েছেন তিনি। জানা গেছে এই দুই নারীর একজন পেরিনথালমন্নার বাসিন্দা বিন্দু, অন্যজন কন্নুরের বাসিন্দা কণকদুর্গা। গত মাসেও এই দুজন মন্দিরে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন, কিন্তু দক্ষিণপন্থি হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের সমর্থকদের ব্যাপক বাধার মুখে তারা ফিরে আসেন। গত বছর ২৮ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছিল যে শবরীমালা মন্দিরে সব বয়সী নারীরাই প্রবেশ করতে পারবেন। কিন্তু এতদিন বেশ কয়েকজন সেই রায় অনুযায়ী মন্দিরে ঢোকার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন ভক্তদের বাধায়। বহু মানুষ যুগ যুগ ধরে বিশ্বাস করেন যে ভগবান আয়াপ্পা এক ব্রহ্মচারী দেবতা, তাই ১০ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে যে সময়ে ঋতুমতী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, সেই বয়সের নারীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। বিজেপি এবং তার সহযোগী সংগঠনগুলি সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর থেকেই গোটা রাজ্য জুড়ে মন্দিরে নারীদের প্রবেশাধিকারের বিরুদ্ধে এবং পরম্পরা বজায় রাখার সমর্থনে জোরদার প্রচার-মিছিল-ধর্মঘট করেছে। ২ ডিসেম্বর ভোরে মন্দিরে দুই নারী প্রবেশ করার পরে প্রধান পুরোহিত মন্দির বন্ধ করে দিয়েছিলেন। প্রধান পুরোহিত পুলিশকে জানিয়েছিলেন যে দুই নারী প্রবেশ করার কারণে মন্দির অপবিত্র হয়ে গেছে, তাই শুদ্ধিকরণ দরকার। পরে অবশ্য মন্দিরের দরজা ফের খোলা হয়েছে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..