যারাই ক্ষমতায় আসে তারাই গরিবের ওপর চড়াও হয়

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

হকার উচ্ছেদের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জের চাষাড়ায় প্রতীকী অনশনে বক্তব্য রাখছেন সিপিবি উপদেষ্টা মনজুরুল আহসান খান
একতা প্রতিবেদক : হকারদের পুনর্বাসনসহ ছুটির দিনে ও বিকেল ৫টার পর ফুটপাতে বসতে দেয়ার দাবিতে গত ১১ জানুয়ারি নারা চাষাড়া শহীদ মিনারে নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার সংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে প্রতিকী অনশন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন হকার সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক আসাদুল ইসলাম আসাদ। সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সিপিবি উপদেষ্টা কমরেড মনজরুল আহসান খান, জাতীয় শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ, বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়ন কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি আবুল হাসেম কবীর, উপদেষ্টা হযরত আলী, মঞ্জুর মইন। বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ণ কেন্দ্রের নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দাস, সহ-সভাপতি আব্দুল হাই শরীফ, জাতীয় শ্রমিকলীগ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাঈনুদ্দিন, গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউননিয়ন কেন্দ্রের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা দুলাল সাহা, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক শ্রমিক ফ্রন্ট জেলা কমিটির সভাপতি আবু নাঈম খান বিপ্লব, সাধারণ সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ণ কেন্দ্রের জেলার সভাপতি এম. এ. শাহীন, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্টের জেলা সাধারণ সম্পাদক জাহ্ঙ্গাীর আলম গোলক, মহানগর হকার্সলীগের সভাপতি রহিম মুন্সী, সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন পলাশ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক সুমাইয়া সেতু, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের জেলা সভাপতি সুলতানা আক্তার, হকার নেতা রানা মিয়া, তুহিন, আব্দুস সালাম প্রমুখ। অনশন কর্মসূচিতে মনজুরুল আহসান খান বলেন, কর্মসংস্থান করার দায়িত্ব সরকারের। কিন্তু আমাদের দেশের বেকারের সংখ্যা এত বেশি যা পৃথিবীর অধিকাংশ দেশের জনসংখ্যাও এর চাইতে কম। সরকার কর্মসংস্থান করতে পারে না ফলে দেশে সীমাহীন বেকারত্বের মাঝে যারা উদ্যোগ নিয়ে নিজেদের রুটি রুজির পথ তৈরি করছে তাদের পুরষ্কৃত করা দরকার। তা না করে জুলুম নির্যাতন ও উচ্ছেদ করে শাস্তি দেয়া হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, যারাই রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসে তারা সবার আগে হকার, রিকশা ও বস্তিবাসীদের উপর চরাও হয়। রাস্তায় প্রাইভেটকার যানজটের জন্য দায়ী, হকার নয়। তারা অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করার সাহস পায় না। কারণ ক্ষমতাসীনরাই সুবিধাভোগী। নারায়ণগঞ্জের মেয়র আইভী খুনী, সন্ত্রাসী,মাফিয়া গডফাদারদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে সারাদেশে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। তারমতো একজন মানুষ এইভাবে হকারদের উচ্ছেদ করে তাদের পেটে লাথি মারতে পারে তা নিজের চোখে না দেখলে বিশ্বাস পারতাম না। আমি আশা করি তিনি অবিলম্বে সকল হকারদের উপর জুলুম নির্যাতন উচ্ছেদ বন্ধ করে তাদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। শ্রমিকলীগ নেতা শুক্কুর মাহমুদ বলেন, শহরে গাড়ীর সংখ্যা বেড়েছে তাই যানজট বেড়েছে। হকাররা যানজট সৃষ্টি করে না। আপনারা শান্তিপূর্ণভাবে ধৈর্য্যরে সাথে আন্দোলন চালিয়ে যান। জাতীয় শ্রমিকলীগ আপনাদের পাশে আছে থাকবে। বক্তারা আরো বলেন, হকারদের ছুটির দিনে ও বিকাল ৫টার পর ফুটপাতে ব্যবসা করার সুযোগ দিতে হবে। অন্যথায় জনপ্রতিনিধি হিসাবে মেয়র আইভীকে হকারদের খেয়ে পড়ে বেঁচে থাকার ব্যবস্থা করতে হবে। কেউ যদি মনে করে হকারদের দমনপীড়ন করে নারায়ণগঞ্জ থেকে তাড়িয়ে দিবে তা কোনোদিনও সম্ভব হবে না।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..