কৃষকদের ন্যায্য অধিকার আজো কায়েম হয়নি

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

গাইবান্ধায় কৃষক সমিতির বিশাল মিছিল
একতা প্রতিবেদক : ‘কৃষি বাঁচাও, কৃষক বাঁচাও, দেশ বাঁচাও’ এই স্লোগান নিয়ে বাংলাদেশ কৃষক সমিতি গাইবান্ধা জেলা কমিটির ৮ম জেলা সম্মেলন গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। কৃষক সমিতি জেলা সভাপতি সুভাষ শাহ রায়ের সভাপতিত্ব অনুষ্ঠিত সম্মেলন উদ্বোধন করেন কৃষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি বিপ্লব চাকী। সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী সাজ্জাদ জহীর চন্দন। সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য জেলা সভাপতি মিহির ঘোষ, কৃষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য প্রকৌশলী নিমাই গাঙ্গুলী, জেলা কৃষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছাদেকুল ইসলাম, জেলা কমিটির সহসভাপতি তাজুল ইসলাম, সন্তোষ বর্মণ,আব্দুস সামাদ সরকার,উপজেলা সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মণ্ডল। সম্মেলনে বক্তারা বলেন বাংলাদেশ পৃথিবীর অন্যতম কৃষি প্রধান দেশ হলেও কৃষকদের ন্যায্য অধিকার আজও কায়েম হয়নি। রাষ্ট্রীয়ভাবে কৃষকরা সবসময়ে বঞ্চিত হয়েছে। এদেশের মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে কৃষকরা অবদান রেখেছে। কৃষকরাই এদেশের অর্থনীতিকে সচল রেখেছে। বক্তারা বলেন কৃষকদের সন্তানরাই গামের্ন্টসসহ বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানে প্রত্যক্ষ ভূমিকা পালন করে চলেছে। বক্তারা, কৃষি ঋণ মওকুপ,কৃষকদের নিকট থেকে সরাসরি ন্যায্য মূল্য সরকারি গুদামে ধান ক্রয়, বিনা মূল্যে কৃষি উপকরণ বিতরণ করে কৃষকদের সহায়তা করতে জোর দাবি জানান। বক্তারা বলেন সরকার উন্নয়নের কথা যতই বলুক না কেন দেশের কৃষি, কৃষক না বাঁচলে দেশের অর্থনীতি বিপর্যস্ত হয়ে পড়বে। সম্মেলনে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক কৃষক ফ্রন্ট নেতা মোস্তফা মনিরুজ্জামান, উদীচী জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল গণি রিজন, বাকবিশিস নেতা তপন কুমার বর্মণ, যুবনেতা প্রতিভা সরকার ববি, ছাত্রনেতা তপন দেবনাথ, কৃষক নেতা জাহাঙ্গীর আলম, ক্ষেতমজুর নেতা মইশ্যাল প্রমূখ। এর আগে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা পাবলিক লাইব্রেরী চত্বর থেকে শুরু হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে। সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে কাউন্সিল শেষে সুভাষ শাহ রায়কে সভাপতি, ছাদেকুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক ও জাহাঙ্গীর মণ্ডলকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ২৫ সদস্যের জেলা কমিটি গঠন করা হয়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ : বাংলাদেশ কৃষক সমিতির চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সম্মেলনে গত ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হোসেন খান। আরও বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি অ্যাডভোকেট সাইদুল ইসলাম, প্রবীণ কৃষকনেতা গোলাম রাব্বানী, তৌফিকুল ইসলাম, ওমর আলী, আমিনুল ইসলাম ফিটু প্রমুখ। সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন জেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কৃষকনেতা হুমায়ুন কবীর ও কাউন্সিল অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন গোলাম রব্বানী। রিপোর্ট পেশ করেন মিলন কুমার পাল। সম্মেলনে সর্বসম্মতিতে হুমায়ুন কবীরকে সভাপতি ও মিলন পালকে সাধারণ সম্পাদক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি গঠিত। সম্মেলনে আলোচকরা বলেন, কৃষক কোনো ফসলের ন্যায্য দাম পায় না। বাম্পার ফলন করে বাম্পার ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। ভূমি অফিস ও পল্লীবিদ্যুৎ-এ চলছে অবাধ দুর্নীতি। ফলে কৃষক আজ অস্তিত্ব সংকটে। কৃষক আর কৃষিতে টিকে থাকতে পারছে না। জমি বেচে কৃষক পাড়ি দিচ্ছে দেশ-বিদেশের শ্রম বাজারে। কৃষিজমি বিনা বাধায় চলে যাচ্ছে অকৃষিখাতে। দেশের কৃষি ও কৃষক আজ বিপন্ন প্রায়। দেশের খাদ্য নিরাপত্তা হুমকির মধ্যে। তাই কৃষি, কৃষক ও দেশের স্বার্থে কৃষক আন্দোলন ও সংগঠন গড়ে তোলার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানান বক্তারা। নোয়াখালী : বাংলাদেশ কৃষক সমিতি নোয়াখালী জেলা সম্মেলন গত ৬ জানয়ারি সকাল ১১টায় নোয়াখালী টাউন হলে অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন কৃষকনেতা মনোরঞ্জন মজুমদার, প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য সুকান্ত শফি চৌধুরী, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য পুলক কুমার দাস, অ্যাড. মোল্লা হাবিবুর রাছুল মামুন, অশোক সাহা, শহিদ উদ্দিন বাবুল, ডা. আবু তাহের, সমীর চক্রবর্তী, অ্যাডভোকেট প্রদ্যুৎ কান্তি পালসহ কৃষক নেতৃবৃন্দ। সম্মেলন উদ্বোধন করেন কৃষকনেতা মুক্তিযোদ্ধা নূর ইসলাম। সঞ্চালনায় ছিলেন মাঈন উদ্দিন লেলিন। সম্মেলনে সর্বসম্মতিক্রমে কৃষকনেতা মনোরঞ্জন মজুমদারকে সভাপতি এবং নূর মোহাম্মদকে সাধারণ সম্পাদক করে ১৯ সদস্য বিশিষ্ট নোয়াখালী জেলা কমিটি গঠিত হয়। এছাড়া, নোয়াখালী জেলা কৃষক সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির উদ্যোগে গত ২৭ ডিসেম্বর সুবর্ণচর উপজেলাধীন নয়াপাড়া গ্রামে নুরামাশ মিষ্টি ব্যাপারীর সভাপতিত্বে বিপুলের দোকান এলাকায় কৃষকদেরকে নিয়ে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক নূর মোহাম্মদ এবং সদস্য মনোরঞ্জন মজুমদার, ডাক্তার মহিউদ্দিন, আবদুল্লাহ প্রমুখ। সভা শেষে আবদুল্লাহকে সভাপতি ও মহিউদ্দিনকে সাধারণ সম্পাদক করে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট কৃষক সমিতি নয়াপাড়া কমিটি গঠিত হয়।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..