ঢাকা উত্তরে নির্বাচন ফেব্রুয়ারির শেষে

কাস্তে প্রতীকে লড়তে প্রস্তুতি ক্বাফী রতনের

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

একতা প্রতিবেদক : মেয়রের মৃত্যুতে শূন্য ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন ফেব্রুয়ারির শেষে হতে পারে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে। ৪ জানুয়ারি কমিশনের নিয়মিত সভায় ওই উপনির্বাচনের সম্ভাব্য তারিখ ঠিক হয় ২৬ ফেব্রুয়ারি। এ সপ্তাহে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার কথা। ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর-দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনে সর্বশেষ ভোট হয়। গত বছর নির্বাচিত মেয়র আনিসুল হক মারা গেলে উত্তরের মেয়র পদটি শূন্য হয়। পুনঃনির্বাচনেও ঢাকা উত্তরে মেয়র পদে লড়ার জোর প্রস্তুতি শুরু করেছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)-র পক্ষ থেকে প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন। দল থেকেও তাকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। গত কয়েক মাস ধরে রাজপথের আন্দোলনের সহযোগী বাম-গণতান্ত্রিক দলগুলোর একক প্রার্থী হিসেবে তাকে দেখতে চান সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীরাও। ঢাকা উত্তরের নির্বাচন নিয়ে আলোচনা শুরুর পর থেকেই ক্বাফী রতনকে ফের নির্বাচন করতে অনুরোধ করেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। বর্তমান সরকারের দুঃশাসন ও চলমান লুটপাটের মধ্যে গতবারও তার সবার জন্য বাসযোগ্য ঢাকা আন্দোলন জনগণের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। নির্বাচনের দিন সরকারি প্রার্থীর এজেন্টদের ভয়ভীতি, কেন্দ্র দখল ও নানা ধরণের অনৈতিক চাপের মুখে জনগণের প্রকৃত সমর্থনের চিত্র দৃশ্যমান না হলেও সিপিবি সমর্থিত প্রার্থী ক্বাফী রতনের প্রচারণায় ছিল খেটে খাওয়া সাধারণ নিম্নবিত্ত মধ্যবিত্ত মানুষের জোয়ার। নির্দলীয় প্রতীকে হওয়ায় সেবার তার মার্কা ছিল হাতি। এবার দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় ক্বাফীর হাতে উঠতে যাচ্ছে গরীব-মেহনতি মানুষ, কৃষক-শ্রমিক, বিপ্লবী লড়াকু জনতার মার্কা কাস্তে। এ নিয়ে তোড়জোরও চলছে ব্যাপক। আনুষ্ঠানিক তফসিল ঘোষণা হওয়ার পর তার প্রার্থীতা ঘোষণা এবং প্রচার প্রচারণা শুরুর প্রস্তুতিও নেয়া হয়েছে। সিপিবি-বাসদ ও গণতান্ত্রিক বামমোর্চার পক্ষ থেকে একক প্রার্থী করারও চেষ্টা চলছে বলে সিপিবির শীর্ষ নেতৃত্ব জানিয়েছেন। নির্বাচনী লড়াইয়ে সর্বোচ্চ জোর দেওয়ার কথা জানিয়েছেন সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য ক্বাফী রতন। ৪ জানুয়ারি ফেইসবুকে দেওয়া এক পোস্টে তিনি বলেন, “আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র নির্বাচনে বামপন্থিদের প্রার্থী হিসেবে আমার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার বিষয়ে পার্টি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমি কৃতজ্ঞ চিত্তে তা গ্রহণ করছি। “আমি ঢাকা উত্তরের সকল বামপন্থি বন্ধু, আমার ব্যক্তিগত বন্ধু এবং সকলের জন্য বাসযোগ্য মানবিক ঢাকা’র পক্ষাবলম্বনকারীদের অকুণ্ঠ সমর্থন কামনা করছি। আসুন মানবিক ঢাকা গড়ার সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করি।”

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..