নকশিকাঁথাতেই তাদের জীবন-জীবিকা

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
রাজশাহী সংবাদদাতা : বাগমারার নিভৃত গ্রামের আনোয়ারা, জরিনা ও কোহিনুরের নিপুণ হাতের তৈরি নকশিকাঁথা যেন কবি জসিম উদ্দিনের সেই নকশিকাঁথার গল্প মনে করিয়ে দেয়। কোনো নাটক বা গল্পের কাহিনী হিসাবে নয়। এরা নকশি কাঁথায় মনোনিবেশ করেছে জীবন জীবিকার তাগিদে। এদের কেউ বিধবা, কেউবা স্বামী পরিত্যক্তা আবার অনেকের বিয়েই হয়নি যৌতুকের টাকার অভাবে। তবে তারা কারো বোঝা হয়ে নেই। নিজেরাই নিজেদের বাঁচার অবলম্বন খুঁজে নিয়েছেন। উপজেলার নরদাশ ইউনিয়নের গোরসার গ্রামের এমন প্রায় অর্ধশতাধিক নারী এখন কাঁথা সেলাই করে জীবিকা নির্বাহ করছে। এরা না পেয়েছে কোন এনজিও’র ঋণ না পেয়েছে সরকারি কোনো সাহায্য সহযোগিতা। এরা নিজেদের সামান্য পুঁজি দিয়ে কাপড় ও সুঁই সুতা কিনে অবসরে সেলাই করে চলেছে নানান ডিজাইনের কাঁথা। তারা জানান, কাঁরুকাজের উপর এসব কাঁথা তৈরির সময় ও মূল্য নির্ভর করে। সর্বনিম্ন একহাজার থেকে পাঁচ হাজার টাকা মূল্যের কাঁথা তৈরি করেন।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..