সিলেটে রুশ বিপ্লবের শততম বার্ষিকী

সমাজতন্ত্রের কোনো বিকল্প নেই

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

সিলেটে মহান অক্টোবর বিপ্লবের শতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন সিপিবি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ
সিলেট সংবাদদাতা : বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ বলেন, পুঁজিবাদের বিকল্প সমাজতন্ত্র। কিন্তু সমাজতন্ত্রের কোনো বিকল্প নেই। সমাজতান্ত্রিক রুশ বিপ্লবের শততম বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে গত ২৪ নভেম্বর সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এক সমাবশে তিনি একথা বলেন। সমাজতান্ত্রিক রুশ বিপ্লবের শততম বার্ষিকী উদযাপন সিলেটের উদ্যোগে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক বেদানন্দ ভট্টাচার্যের সভাপতিত্বে এবং সদস্যসচিব অধ্যাপক ড. আবুল কাশেম এর পরিচালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গণতন্ত্রী পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ব্যারিস্টার আরশ আলী, জাসদ সিলেট জেলা কমিটির সভাপতি লোকমান আহমদ, ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য সিকন্দর আলী, বাসদ সিলেট জেলা সমন্বয়ক আবু জাফর, সাম্যবাদী দলের নেতা আফরোজ আলী। শততম বার্ষিকী উদযাপন কমিটি সিলেটের সাংস্কৃতিক উপ-পরিষদের তত্ত্বাবধানে কমিউনিস্ট ইন্টারন্যাশনাল সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। আলোচনাপর্বের শুরুতে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন জাসদের জেলা সাধারণ সম্পাদক কে এ কিবরিয়া। এর পূর্বে সিলেটের বাম ধারার বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মীরা লাল পতাকার মিছিল সহকারে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে সমবেত হতে থাকে। আবু জাফর আলো বলেন, রুশ বিপ্লব মানবমুক্তির ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ঘটনা। এ বিপ্লব মানুষের মুক্তির দিশা নির্দেশ করেছে। ঔপনিবেশিক শোষণে নিপীড়িত জাতিগুলোকে শোষণের নিগড় ভাঙতে অনুপ্রাণিত ও সমর্থন যুগিয়েছে রুশ বিপ্লব। যে বিপ্লবের কারণে পুঁজিবাদী স্বৈরাচারী জারতন্ত্রের সমূলে উচ্ছেদ ঘটিয়ে শ্রমিক-কৃষক রাজ প্রতিষ্ঠা পেয়েছিল সোভিয়েত ইউনিয়নে এবং মাত্র কয়েক বছরে অনগ্রসর এ দেশটি জ্ঞানে-বিজ্ঞানে, খেলাধুলায়, শিক্ষায়-সংস্কৃতিতে বিশ্বের সেরা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এটা সম্ভব হয়েছিল শুধুমাত্র সমাজতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থা কায়েমের ফলে। আর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় পরাক্রমশালী হিটলার বাহিনীকে পরাজিত করে যুদ্ধের সমাপ্তি ঘটিয়ে সোভিয়েত ইউনিয়ন বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছিল সে দেশের জনগণের সাম্যবাদী আদর্শিক চেতনার বলে বলিয়ান হয়ে। সোভিয়েতের পতনের ফলে সারা পৃথিবীর মানুষকে আজ চরম মূল্য দিতে হচ্ছে। মানুষের ক্ষোভ ও দুর্দশা জানিয়ে দিচ্ছে সভ্যতা কেন আজ বর্বরতায় গিয়ে পৌঁছেছে। বর্তমান সাম্রাজ্যবাদ নির্ভর পুঁজিবাদী ও ভোগবাদী সমাজব্যবস্থা চলতে থাকলে পৃথিবীর ধ্বংস ঠেকিয়ে রাখা অসম্ভব হয়ে পড়বে। বলা হচ্ছে নৈতিকতার অধঃপতন ঘটছে। কিন্তু আসল সত্য হলো এই যে, পুঁজিবাদ তার নিজস্ব নৈতিকতাকেই সর্বত্র ছড়িয়ে দিচ্ছে। এই পুঁজিবাদী নৈতিকতা মনুষত্বের মর্যাদা দেয় না, শুধু মুনাফা চেনে আর ভোগ-লালসায় অস্থির থাকে মানবিক বিবেচনাগুলোকে পদদলিত করে। তাই পুঁজিবাদের বিকল্প সমাজতন্ত্র, কিন্তু সমাজতন্ত্রের কোনো বিকল্প নেই। আলোচনাপর্ব শেষে একুশে পদকপ্রাপ্ত বিশিষ্ট গণসংগীত শিল্পী বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি মাহমুদ সেলিম এর মনোমুগ্ধকর একক সংগীত পরিবেশনা এবং স্থানীয় সংগঠন নৃত্যশৈলী, গীতবিতান, মৃত্তিকায় মহাকাল, থিয়েটার মুরারীচাঁদ, উদীচীসহ বিভিন্ন সংগঠন প্রাণমাতানো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..