সাহিত্য সমালোচনা

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

দ্যু প্রকাশন প্রথম প্রকাশ : আগস্ট ২০১৭ মূল্য : ১৮০ টাকা
দ্যু প্রকাশন থেকে সদ্য প্রকাশিত ‘বামপন্থীদের পরিচয় সংকট’ বইটির সমালোচনা লিখেছেন তরুণ লেখক ও রাজনৈতিক কর্মী শাখারভ হোসেন সেবক ড. মোহাম্মদ হাননানকে আমি চিনি ২০১০ সালে ছাত্র রাজনীতিতে সরাসরি অংশগ্রহণ শুরুর পর থেকে। সে সময় আমি তার ‘ছাত্র আন্দোলনের ইতিহাস’ নামের একটি বই পড়ি। সাত বছর পর এ লেখকের আরেকটি বই হাতে এসেছে; ‘বামপন্থীদের পরিচয় সংকট’। হাননান ভাইকে নিয়ে কিছু বলার শক্তি আমার নেই। কারণ আমি এত বড় তাত্ত্বিক নই। কিন্তু দ্যু প্রকাশন প্রকাশিত ‘বামপন্থীদের পরিচয় সংকট’ বইটি নিয়ে কিছু না বলেও পারছি না। ‘বামপন্থীদের পরিচয় সংকট’ বইটি নিয়ে কথা বলতে গেলে প্রথমেই উঠে আসে ‘বামপন্থী’ শব্দের ব্যবহারের বিষয়টি। বইটিতে বামপন্থী শব্দটি নিয়ে তিনি আলোচনা করেছেন। বামপন্থী শব্দটা কি আমরা না বুঝেই ব্যবহার করছি? এটা কি আমাদের ঘাড়ে চাপিয়ে দেয়া হয়েছে? হাননান ভাই কোরাআনের আয়াত দিয়ে বুঝাতে চেষ্টা করেছেন যে, এই বাম শব্দটি খারাপ অর্থে ব্যবহৃত হয়। বাংলাদেশে সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের কোনো দল নাই, এ বিষয়টিও বইটিতে প্রমাণের চেষ্টা করেছেন লেখক। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি নিয়ে প্রচুর সমালোচনা করেছেন। শুধু তাই নয় বদরুদ্দিন উমর ভাইয়ের এক টেলিফোন সাক্ষাৎকারকে তুলে ধরে তিনি প্রমাণ করতে চাইছেন যে, এই দেশে এমনকি কোনো সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট পার্টিও নাই। অবশ্য বইটিতে উল্লিখিত আরেকটি সাক্ষাৎকারে বদরুদ্দিন উমরের এ সমালোচনার জবাব দিয়েছেন আরেক কমিউনিস্ট তাত্ত্বিক হায়দার আকবর খান রনো ভাই। বইটির তথ্যমতে, ‘১৯৪৮ সালে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পরপরই ‘ইয়ে আজাদি ঝুঠা হ্যায়’ স্লোগান তুলে কমিউনিস্ট পার্টি বিতর্র্কিত হয়ে পড়ে। ’ (বামপন্থীদের পরিচয় সংকট, পৃষ্ঠা : ৬০) হাননান ভাই এখানে ভুল নয় অর্ধসত্য তথ্য দিয়েছেন। এর পেছনের কারণটা বলেন নাই। এমনকি স্লোগানটাও সম্পূর্ণ করেন নাই। দ্বি-জাতি তত্ত্বে দেশভাগ কমিউনিস্টরা মানতে পারে নাই, তারা বলেছিলেন, ‘ইয়ে আজাদি ঝুঠা হ্যায়, লাখো ইনসান ভুখা হ্যায়’। কমিউনিস্টরাই যে ঠিক কথা বলেছিল তার প্রমাণ হতেও সময় লাগেনি। হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গা এ স্বাধীনতার ফাঁকিটা সামনে এনে হাজির করে। বাংলাদেশ সৃষ্টির মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে ধর্মের ভিত্তিতে দেশভাগ কোনো মুক্তি আনতে পারে না। হাননান ভাই বামপন্থীদের পরিচয় সংকট বইটিতে এমন বেশকিছু অর্ধসত্যের উপস্থাপন করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘ধর্মের বিরুদ্ধে কাজ করার জন্য তাদের একটা মঞ্চ প্রয়োজন ছিল। এটা কমিউনিস্ট পার্টির মাধ্যমে তারা পেয়েও গিয়েছিল। নাস্তিকরা যতটা না সমাজতন্ত্রের প্রচার করতেন, তার চেয়ে বেশি প্রচার করতেন নাস্তিক্যবাদ ও এর দর্শনের প্রচার। ’ (বামপন্থীদের পরিচয় সংকট, পৃষ্ঠা : ৫৩) একটু দেখা যাক। ধর্ম প্রসঙ্গে লেনিন বলেছেন- ‘ধর্মকে ব্যক্তির নিজস্ব ব্যাপার বলে ঘোষণা করা উচিত। এ উক্তিতেই ধর্মের বিষয়ে সমাজতন্ত্রীদের মনোভাবের পরিচয় পাওয়া যাবে। কিন্তু কোনোরূপ বিভ্রান্তির সম্ভাবনা পরিহারের জন্য এসব শব্দাবলীর অর্থ সুস্পষ্টভাবে নির্ধারিত হওয়া দরকার। রাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের পরিপ্রেক্ষিতেই ধর্মকে ব্যক্তির নিজস্ব ব্যপার বলে বিবেচনার দাবি করছি। ... ধর্ম নিয়ে রাষ্ট্রের কোনো গরজ থাকা চলবে না এবং ধর্মীয় সংস্থাসমূহের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার সঙ্গে জড়িত হওয়া চলবে না। যেকোনো ধর্মে বিশ্বাস অথবা কোনো ধর্মই না মানায় (অর্থাৎ নাস্তিক হওয়া) সকলেই থাকবে সর্ম্পূণ স্বাধীন। ’ আর এটিই এখানকার কমিউনিস্টরা অনুসরণ করেন। এ ছাড়া হাননান ভাই তার বইয়ে কমিউনিস্টদের ভুল নিয়ে সমালোচনা করতে গিয়ে কিছু অসত্য তথ্যও তুলে ধরেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘১৯৮৭ সালে কমরেড মোহাম্মদ ফরহাদের মৃত্যু হলে কমিউনিস্ট পার্টি অফিসে মাইক ব্যবহার করে পবিত্র কোরআন পাঠ করা হয়। ’ (পৃষ্ঠা: ৬২) এ তথ্যকে প্রচলিত মিথ্যাচার হিসেবে চিহ্নিত করেছেন কমরেড মোহাম্মদ ফরহাদের সময়কালের পার্টির কয়েকজন নেতা। তারা জানান, শুধু জানাযা হয়েছে। কোথাও মাইক লাগিয়ে কোরআন পাঠের তথ্য পাওয়া যায়নি। এ দেশের রাজনীতিতে কমিউনিস্টদের বিপরীতে বরাবরই ধর্মকে ব্যবহার করা হয়েছে, নানাভাবে। একই কথা এবার বললেন প্রাজ্ঞ হাননান ভাই। আমি তাকে বলতে চাই, কমিউনিস্টরা কোনো ব্যক্তির ধর্ম পালনের বিরুদ্ধে বলে না, ধর্মের ব্যবসা বন্ধের কথা বলে বারবার। তিনি মনে হয় ভুলে গেছেন কমিউনিস্টরা সমাজতন্ত্র থেকে সহজে পিছপা হয় না। কারণ তাদের একটা নিজস্ব আদর্শ আছে, যা আমরা তাদের আন্দোলনের ইতিহাস লক্ষ্য করলেই বুঝতে পারি। তার কলমেও এসব ইতিহাসের কিছু পাঠ উঠে এসেছে। কিন্তু কমিউনিস্টদের আন্দোলন বন্ধ করতে বুর্জোয়াদের আদি ‘নাস্তিক’ প্রচারণা ও ধর্মকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহারের যে ধারা তার সঙ্গে এবার হাননান ভাইয়ের লেখা অনেকটা মিলে গেল। দুঃখজনকভাবে আজ তিনিও তাদেরই একজন হয়ে উঠলেন।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..