অভিবাসী নিবন্ধনের বিশেষ প্রক্রিয়া বাতিল, ওবামার ক্ষোভ

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা বিদেশ ডেস্ক : তরুণ অভিবাসীদের বৈধ করণে ওবামার সময়ে গৃহীত ‘ড্রিমার’ কর্মসূচি বাতিল করা হয়েছে। ডেফারড অ্যাকশন ফর চিলড্রেন অ্যারাইভাল’ (ডিএসিএ) নামের প্রকল্পটি আনুষ্ঠানিকভাবে সমাপ্ত ঘোষণা করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। পাঁচ বছর আগে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার চালু করা এ প্রকল্পের আওতায় সুরক্ষা পেয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া অনিবন্ধিত প্রায় আট লাখ তরুণ অভিবাসী। অবৈধভাবে আমেরিকায় যাওয়া তরুণদের বিতাড়ণের হাত থেকে রেহাই দিয়ে সেদেশে বসবাস, পড়াশোনা ও ভবিষ্যতে কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছিলেন ওবামা এই প্রকল্পের মাধ্যমে। এরাই ‘ড্রিমার’ নামে পরিচিত। সমালোচকরা এ প্রকল্পকে অবৈধ অভিবাসীদের ক্ষমা করার নামান্তর বলেই মন্তব্য করে এসেছেন। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে থেকেই ট্রাম্প এ প্রকল্পের বিরোধিতা করছিলেন। নির্বাচিত হওয়া মাত্রই এ প্রকল্প বাতিল করার পরিকল্পনাও আগেই জানিয়েছিলেন তিনি। তারপরও পরবর্তীতে তাকে ড্রিমারদের ছাড় দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছিল কংগ্রেসের স্পিকার পল রায়ানের পক্ষ থেকে। বলা হয়েছিল, ‘এ তরুণরা আমেরিকা ছাড়া অন্য দেশ চেনে না, তাদের বাবা-মা তাদেরকে এখানে নিয়ে এসেছে।’ রায়ানের অবস্থানকে সমর্থন জানিয়ে পরে ডেমোক্রেটরাও বলেছিল, ‘তারা যাতে যুক্তরাষ্ট্রে থেকে যেতে পারে, সেই রকম আইনই আনা উচিত।’ কিন্তু তিনি যে কারও মতই আমলে নেন না তা আবার প্রমাণ করলেন ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের এ্যাটর্নি জেনারেল জেফ শেসনস সম্প্রতি এ প্রকল্পের অবসান ঘোষণা করেন। এখন থেকে মার্কিন হোমল্যান্ড সিকিউরিটি এ প্রকল্পের অধীনে নতুন করে আর কোনো আবেদন গ্রহণ করবে না বলে জানানো হয়েছে ঘোষণায়। এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সাবেক প্রেসিডেন্ট ওবামা, কর্মসূচিটি বাতিলের পরপরই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে ওবামা তাঁর প্রতিক্রিয়া জানান। তিনি নতুন প্রশাসনের এ সিদ্ধান্তকে ‘নিষ্ঠুর’ ও ‘ভুল’ অ্যাখ্যা দেন। তিনি বলেন, ‘এসব তরুণকে আক্রমণের লক্ষ্যবস্তু বানানো উচিত নয়, কারণ তাঁরা এমন কিছু করেননি যা অন্যায়।’ ওবামা বলেন, ‘হয় আমরা সেই ধরনের মানুষ, যাঁরা আশাবাদী তরুণদের আমেরিকা থেকে বের করে দিতে চাই; কিংবা নিজের সন্তানকে যেভাবে দেখি, এসব তরুণকেও সেভাবে দেখতে পারি।’

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..