ইয়েমেনে কলেরা আক্রান্ত তিন লাখের বেশি : রেডক্রস

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

একতা বিদেশ ডেস্ক : যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া কলেরা রোগীর সংখ্যা গত ১০ সপ্তাহে ৩ লাখ ছাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক রেডক্রস কমিটি (আইসিআরসি)। কলেরা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা জাতিসংঘের হিসাবমতে ১,৭০০রও বেশি। বিবিসি জানায়, পরিস্থিতি এখনও নিয়ন্ত্রণের বাইরে এবং প্রতিদিন নতুন করে প্রায় ৭ হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে বলে রেডক্রস সতর্ক করেছে। পানিবাহিত এ রোগ সহজে নিরাময়যোগ্য হলেও যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনে সবার জন্য চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা কঠিন হচ্ছে। আক্রান্তদের ক্ষেত্রে তেমন মারাত্মক কোনো লক্ষণ দেখা না গেলেও রোগটি মারাত্মক আকার ধারণ করলে বিনা চিকিৎসায় কয়েক ঘন্টার মধ্যে রোগী মারা যেতে পারে। গত ২৪ জুনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বিশ্বে ইয়েমেনেই ‘সবচেয়ে ভয়াবহ কলেরার প্রাদুর্ভাব’ ঘোষণা করে। সেখানে ২ লাখেরও বেশি মানুষ কলেরা আক্রান্ত হওয়ার আনুমানিক পরিসংখ্যান দেয় তারা। আর এর মাত্র দু’সপ্তাহের মাথায় রেডক্রস ইয়েমেনে আরও ১ লাখ মানুষ এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার হওয়ার আনুমানিক হিসাব দিল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলেছে, তারা ২ লাখ ৯৭ হাজার ৪৩৮ জন কলেরা রোগীর সংখ্যা রেকর্ড করেছে। তবে ইয়েমেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের দেওয়া রোগীর সর্বশেষ সংখ্যা এখনও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। ইয়েমেনের ২৩ প্রদেশের একটি বাদে সবগুলোতেই মানুষ কলেরা আক্রান্ত হয়েছে। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ৪ টি প্রদেশ হচ্ছে, সানা, হুদায়দা, হাজ্জা এবং আমরান। কলেরা সংক্রমণের বাইরেও গৃহযুদ্ধকবলিত ইয়েমেনের প্রায় ১ কোটি শিশুর জন্য জরুরি ভিত্তিতে মানবিক সহায়তা প্রয়োজন বলে জানিয়েছিল জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ। গত ৬ জুলাই এক বিবৃতিতে সংস্থাটির ইয়েমেন কার্যালয় এ উদ্বেগের জানায়। বিবৃতিতে বলা হয়, ইউনিসেফের ইয়েমেনের বেশিরভাগ শিশু মৌলিক স্বাস্থ্য সুরক্ষা, পর্যাপ্ত পুষ্টি, বিশুদ্ধ পানীয়, যথাযথ স্যানিটেশন এবং শিক্ষার অভাবে রয়েছে। জাতিসংঘের খাদ্য কর্মসূচি ডব্লিউএফপি বলেছে, ১ কোটি ৭০ লাখ ইয়েমেনি জানে না পরবর্তী বেলার খাবার কিভাবে আসবে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..