সকল জলমহালের ইজারা বাতিল কর

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : হাওরের সমস্যা এবং সমাধানের লক্ষ্যে করণীয় নির্ধারণে কিশোরগঞ্জে হাওর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিশোরগঞ্জের খরমপট্টির জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমপ্লেক্স মিলনায়তনে গত ১০ জুন, শনিবার দিনব্যাপী এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সিপিবি ও বাসদ-এর উদ্যোগে আয়োজিত এই হাওর সম্মেলনে কিশোরগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, নেত্রকোনা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা থেকে আসা কৃষক প্রতিনিধি ও দলীয় বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ অংশ নেন। এতে সিপিবি সাধারণ সম্পাদক মোঃ. শাহ আলম, বাসদ সাধারণ সম্পাদক কমরেড খালেকুজ্জামান, সিপিবির সহ সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ কৃষক সমিতির সভাপতি সাজ্জাদ জহির চন্দন, বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা রাজেকুজ্জামান রতন, সিপিবির সম্পাদক সদস্য জলি তালুকদার, ক্ষেতমজুর সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন রেজা, শিল্পী কফিল আহমেদ, ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি এবং হাওর গবেষক শরীফুজ্জামান শরীফ ও ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি লাকী আক্তার বক্তৃতা করেন। জেলা সিপিবি সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে হাওর সম্মেলনে স্থানীয়দের মধ্যে জেলা বাসদ সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট শফীকুল ইসলাম, জেলা সিপিবি সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এনামুল হক, ডা. এনামুল হক ইদ্রিস, করিমগঞ্জের জিরাতি কৃষক আসিদ মিয়া, কিশোরগঞ্জ সদরের জিরাতি কৃষক চাঁন মিয়া ও নূরুল হক ভূঁইয়া, সুনামগঞ্জ জেলা সিপিবি’র সভাপতি চিত্ত রঞ্জন তালুকদারসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা বক্তব্য রাখেন। হাওরের ছাত্র সমাজের দূরবস্থা তুলে ধরেন ছাত্র ইউনিয়ন নেত্রকোনা জেলার সভাপতি আওলাদ হোসেন রনি। হাওর অঞ্চলের মানুষের জীবন-জীবিকা রক্ষায় বাস্তব পরিকল্পনা গ্রহণের তাগিদ দিয়ে বক্তারা বলেন, হাওরের ধান, মাছ তথা কৃষি অর্থনীতিকে সচল রাখতে হলে বাস্তবানুগ পরিকল্পনা নিতে হবে। আভুরা সড়ক নির্মাণের নামে হাওরের স্বাভাবিক প্রাকৃতিক চরিত্রকে ব্যাহত না করার আহ্বানও জানান তারা। সম্মেলনে হাওর সমস্যার স্থায়ী সমাধানে কার্যকর উদ্যোগ নেয়ার জন্য আগাম বন্যাকবলিত হাওর অঞ্চলকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা ও হাওরের সকল জলমহালের ইজারা বাতিল করে জনসাধারণের মাছ ধরার জন্য উন্মুক্ত রাখাসহ ১৬ দফা দাবি উত্থাপন করা হয়। সম্মেলনে ১৬ দফা দাবি উত্থাপন করে তা অবিলম্বে বাস্তবায়নের জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। তা না হলে ঈদের পর হাওরবাসীকে নিয়ে বৃহৎ আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে সম্মেলনের থেকে জানানো হয়। উল্লেখযোগ্য দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- চৈত্রের বন্যায় সর্বস্বান্ত হাওর এলাকাকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করতে হবে, হাওর এলাকার সকল জলমহালের ইজারা বাতিল করে জন-সাধারণ যেন উন্মুক্ত জলাশয়ে মাছ আহরণ করতে পারে, সেই সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে, সারা বছর হাওরে রিলিফ ও রেশনের মাধ্যমে চাল, আটাসহ নিত্য প্রয়োজনীয় ৮টি সামগ্রী পোঁছে দেয়ার ব্যবস্থা নিতে হবে, ত্রাণ বিতরণে ঘুষ-দুর্নীতি, অনিয়ম ও দলীয়করণ বন্ধ করতে হবে, ১০ টাকার চাল ক্রয়ের সুযোগ সারা বছর রাখতে হবে, হাওরে পর্যাপ্ত পরিমাণ পোনা মাছ সরবরাহ ও প্রাকৃতিক পরিবেশ ঠিক রেখে মাছের অভয়ারণ্য তৈরি এবং গবাদি পশুর জন্য পর্যাপ্ত খাদ্য সরবরাহ করতে হবে, হাওরে এলাকায় চাষীদের জন্য সুদসহ সকল প্রকার কৃষি ঋণ, এনজিও ঋণ, মহাজনী ঋণ মওকুফ করে আগামী মৌসুম পর্যন্ত পর্যাপ্ত পরিমাণ কৃষি উপকরণ ও নতুন করে সুদমুক্ত কৃষি ঋণ প্রদান ও শস্য বিমা চালু, চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। পানি উন্নয়ন বোর্ড, ঠিকাদার, পিআইসি ও সরকারি দলের দুর্নীতিবাজ ব্যক্তিসহ দায়ীদের গ্রেপ্তার- দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, পরিকল্পিতভাবে হাওর অঞ্চলে সমস্ত নদী ও খাল এবং পানি নিষ্কাশনের সংযোগ নদীসমূহ খনন, হাওরে ফসল রক্ষা বাঁধ, বেড়ি বাঁধ যথাসময়ে নির্মাণ ও মেরামত করতে হবে, আইন করে দুর্দশাগ্রস্ত কৃষকদের জিম্মি করে গবাদি পশু ও জমি বেচা- কেনা এবং দাদন ব্যবসা বন্ধ করতে হবে, হাওর এলাকার জন্য পাহাড়ি ঢলের পূর্বেই তোলা যায় এমন ধানের জাত উদ্ভাবন এবং আবাদের ব্যবস্থা করতে হবে, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিসহ হাওর অঞ্চলে নিম্ন আয়ের পরিবারের শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে শিক্ষা নিশ্চয়তা প্রদানসহ ১৬ টি দাবি পেশ করা হয়। দাবিগুলো হাওরের জনগণের বাঁচার স্বার্থে অবিলম্বে বাস্তবায়নের জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। বক্তারা বলেন, হাওরে ধান গেছে, মাছ গেছে, হাঁস-মুরগি গেছে। গবাদি পশুর খাবারের ব্যবস্থা নেই। মানুষের ঘরে ঘরে অভাব। হাওরে বর্তমানে যে দুর্ভিক্ষাবস্থা বিরাজ করছে, সেটি সরকার আমলে নিচ্ছে না। বক্তারা আরও বলেন, হাওরের দুই কোটি মানুষের দাবি উপেক্ষা করে সরকার যে বাজেট প্রণয়ন করেছে সেটা গ্রহণযোগ্য নয়। তারা হাওর বাসীর মতামতের ভিত্তিতে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদী প্রকল্প প্রণয়ন এবং তাদেরকে নিয়ে তা বাস্তবায়নের দাবি জানান। এসময় হাওর এলাকাকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করে সমস্যা সমাধানে কার্যকর স্থায়ী সমাধানেরও দাবি জানানো হয়।
প্রথম পাতা
জনজীবনের ওপর ধারাবাহিক আক্রমণ তুমুল আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে
‘জেরুজালেম ইসরাইলের রাজধানী’, স্বীকৃতি যুক্তরাষ্ট্রের
সিপিবি’র কড়া প্রতিবাদ
মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন সাম্রাজ্যবাদী হস্তক্ষেপ প্রতিহত কর
স্বাধীন হলাম মুক্তি পেলাম না!
স্বামীর লাঠির আঘাতে মৃত্যু উদীচী কর্মী লিজার
ডাকসু’র দাবিতে উন্মুক্ত সংলাপ ১৩ ডিসেম্বর অনশনে শিক্ষার্থী, ছাত্র ইউনিয়নের সংহতি
চীনা কমিউনিস্ট পার্টির প্রতিনিধিদলের সঙ্গে সিপিবি নেতাদের সাক্ষাৎ
রংপুর সিটিতে সিপিবি-বাসদের প্রার্থী আব্দুল কুদ্দুস
মানবতাবিরোধী অপরাধে ৭ রাজাকারের বিরুদ্ধে মামলা
৫৪ শতাংশের বেশি নারী সহিংসতার শিকার
‘চিনেছি-জেনেছি-বুঝেছি’

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..