সুরের জাদুতে ভাসালেন শুভপ্রসাদ

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

রাজধানীর সেগুনবাগিচার শিল্পকলা একাডেমিতে একক সঙ্গীত পরিবেশন করছেন অপার বাংলার গণসঙ্গীত শিল্পীর শুভ প্রসাদ মজুমদার নন্দী
একতা প্রতিবেদক : সুরের বৈচিত্র্য আর কণ্ঠের জাদুতে শ্রোতাদের আবেগে ভাসালেন ভারতের প্রখ্যাত গণসঙ্গীত শিল্পী শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদার। গত ১৬ মার্চ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সঙ্গীত, আবৃত্তি ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে আয়োজিত হয় গুণী এ শিল্পীর একক সঙ্গীতানুষ্ঠান। ‘অপার বাংলার গান’ শিরোনামের এ অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিলেন বাংলাদেশে অবস্থানরত শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদারের শুভানুধ্যায়ী, বন্ধু ও স্বজনরা। অনুষ্ঠানের অন্যতম আয়োজক সঙ্গীতা ইমামের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী পর্বে শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদারকে শুভেচ্ছা জানিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সভাপতি কামাল লোহানী, উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সদস্য ও বিশিষ্ট নাট্যজন শংকর সাঁওজাল, চলচ্চিত্র নির্মাতা শাকুর মজিদ এবং উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক জামসেদ আনোয়ার তপন। এছাড়া, শিল্পীর বন্ধুদের পক্ষ থেকে তাঁর হাতে শুভেচ্ছা স্মারক তুলে দেয়া হয়। একইসাথে শুভেচ্ছা জানানো হয় তবলাবাদক দিব্যেন্দু ব্যানার্জি ও কীবোর্ড বাদক অভিজিৎ চক্রবর্তীকেও। এরপর অকাল প্রয়াত সঙ্গীত গবেষক ও শিল্পী কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্য্যরে স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সংক্ষিপ্ত উদ্বোধনী পর্ব শেষে অন্যতম আয়োজক সৈয়দ ফয়সাল আহমেদ-এর সঞ্চালনায় শুরু হয় শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদার-এর একক পরিবেশনা। লোক, রবীন্দ্র, গণসঙ্গীতসহ নানা আঙ্গিকের বৈচিত্র্যপূর্ণ গান পরিবেশনের মধ্য দিয়ে উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের মুগ্ধ করেন শিল্পী। এদিন তাঁর পরিবেশিত গানগুলোর মধ্যে ছিল, ‘কুসুমে কুসুমে’, ‘মা, আমি তোর কী করেছি’, ‘যেতে যেতে একলা পথে’, ‘আমার নিখিল ভুবন হারালেম’, ‘তুমি রবে নীরবে’, ‘এ পরবাসে’, ‘বসন্তে কী শুধ’, ‘দীপ নিভে গেছে মম’, ‘চিরসখা’, ‘অবণী বাড়ি আছো’, ‘এপার বাংলা’, ‘আবার ফেব্রুয়ারি’, ‘আমি তুমার লাগিয়া রে’, ‘আমি তোমারই’ প্রভৃতি। শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদার-এর এদিনের পরিবেশনায় বৈচিত্র্যপূর্ণ গানের সমারোহ থাকলেও ছিল বিরহ আঙ্গিকের গানের প্রাধান্য। পরিবেশনার এক পর্যায়ে সম্প্রতি অকাল প্রয়াত সঙ্গীত গবেষক ও শিল্পী কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্য্যরে স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন শুভপ্রসাদ। কলকাতার লোকগানের দল ‘দোহার’-এর অন্যতম প্রধান শিল্পী কালিকাপ্রসাদ ছিলেন শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদারের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ একজন। ভারতের আসামে জন্ম নেয়া শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদার শুধুমাত্র আসাম ও পশ্চিমবঙ্গই নয়, বাংলাদেশেও প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক কর্মীদের মধ্যে একটি পরিচিত নাম। পেশায় বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদার, প্রগতিশীল গণ-সাংস্কৃতিক আন্দোলনের একজন অগ্রসৈনিক হিসেবে বিবেচিত। গান গাওয়ার অসাধারণ যোগ্যতাকে তিনি গ্রহণ করেছেন প্রগতিশীল আন্দোলনের, সমাজ বদলের সংগ্রামের অন্যতম হাতিয়ার হিসেবে। ভবিষ্যতে বারবার বাংলাদেশে আসার ইচ্ছাপ্রকাশ করে একক সঙ্গীতানুষ্ঠানের সমাপ্তি টানেন ভারতীয় শিল্পী শুভপ্রসাদ নন্দী মজুমদার।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..