তাজরীনে শ্রমিক হত্যাকাণ্ডের বিচারহীন ৯ বছর

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : তাজরীন গার্মেন্টে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১১২ জন শ্রমিক হত্যার নবম বার্ষিকী পালিত হয়েছে। ২৪ নভেম্বর সকাল ৮টায় আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুরে তাজরীন কারখানার ফটকে ও জুরাইন কবরস্থানে গার্মেন্ট টিইউসি’র পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে তাজরীনসহ সকল শ্রমিক হত্যাকাণ্ডের বিচার, উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ, সুচিকিৎসা, পুনর্বাসনের দাবিতে গার্মেন্ট টিইউসির উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৯ বছর আগে পুড়ে যাওয়া তাজরীন কারখানার সামনে আহত শ্রমিক ও নিহত-আহত শ্রমিকদের সন্তানদেরসহ পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র’র সাধারণ সম্পাদক শ্রমিকনেতা জলি তালুকদার, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক কেএম মিন্টু, কেন্দ্রীয় নেতা মো. শাহজাহান, টিইউসি আশুলিয়া অঞ্চল কমিটির সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল ইসলাম মঞ্জু, আহত শ্রমিক নাসিমা বেগম, নাটা বেগম। সমাবেশে জলি তালুকদার বলেন, ১৯৯০ সাল থেকে এদেশে যত অগ্নিকাণ্ড কিংবা ভবনধ্বসের ঘটনা ঘটেছে তার কোনটারই বিচার আজ পর্যন্ত হয় নাই। ফলে নিয়মিত বিরতিতে একেকটি ভয়াবহ শ্রমিক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে চলেছে। যার সর্বশেষ নিদর্শন সেজান জুস কারখানার ভয়ঙ্কর অগ্নিকাণ্ড এবং অনেক শিশু শ্রমিকসহ বিপুল সংখ্যক প্রাণহানি। তিনি বলেন, তাজরিন অগ্নিকাণ্ডে শ্রমিক হত্যার মামলায় মালিক ও অন্যান্য আসামিরা দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছে। সরকার পক্ষ স্বাক্ষী হাজির করছে না। তিনি আরও বলেন, এজাহারের দুর্বলতার কারণে সেজান জুস কারখানার দায়ী মালিক ও আসামিরা দ্রুততম সময়ের মধ্যে জামিন পেয়েছে। তিনি তাজরিনসহ সকল শ্রমিক হত্যাকাণ্ডের দ্রুত বিচারের দাবি জানান। সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল হয়। জুরাইন কবরস্থানে নিহত তাজরিন শ্রমিকদের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে গার্মেন্ট টিইউসি’র কেন্দ্রীয় নেতা সাদেকুর রহমান শামীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, কোষাধ্যক্ষ এমএ শাহীন, কেন্দ্রীয় নেতা দুলাল সাহা, আব্দুস সালাম বাবুল, মঞ্জুর মঈন, টিইউসি সুত্রাপুর আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি সাইফুল ইসলাম সমীর। সমাবেশ থেকে অবিলম্বে তাজরীন গার্মেন্ট শ্রমিক হত্যাকাণ্ডে দায়ী খুনি মালিক দেলোয়ারসহ অন্যান্য দোষী ব্যক্তিদের জামিন বাতিল করে গ্রেফতার করার দাবি জানানো হয়। তাজরীন হত্যাকাণ্ডের বিচার প্রক্রিয়ার বিলম্বের প্রতিবাদ জানানো হয় এবং তাজরীন, রানা প্লাজা, ট্যাম্পাকো, মাল্টিফ্যাবস, সেজান জুসসহ সকল শ্রমিক হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করা হয়। বক্তারা আরও বলেন, তাজরীন কারখানার আহত ও পঙ্গু শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ ও চিকিৎসার জন্য কোন উদ্যোগ নেয়া হয় নাই। শ্রম প্রতিমন্ত্রী মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্রীয় তহবিল অথবা শ্রমিক কল্যাণ তহবিল থেকে শ্রমিকদের অনুদান প্রদানের আশ্বাস দিলেও গত এক বছর ধরে কাগজ চালাচালি ছাড়া আর কিছুই হয়নি। সমাবেশ থেকে অবিলম্বে আহত ও পঙ্গু শ্রমিকদের প্রতিশ্রুত অনুদান প্রদানের দাবি জানানো হয়।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..