‘সোনার পাথরবাটি’

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : বলা হয়ে থাকে যে, সাম্রাজ্যবাদী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তার আধিপত্য বিস্তারের জন্য শুধু একটি দেশের সরকারকেই নিজের হাতে রাখে না; বিরোধী দলও যাতে হাতের বাইরে চলে না যায় সেই ব্যবস্থাও করে থাকে। ফলে এতে সুবিধা হয় যে, সরকারি দলও তার; বিরোধী দলও তার। সরকার আর বিরোধী দল নিয়ন্ত্রণে থাকলে সেই দেশে আধিপত্য বিস্তারে বিশেষ বেগ পেতে হয় না। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর যখন সামরিক শাসক স্বৈরাচার এরশাদের জাতীয় পার্টি একইসঙ্গে বিরোধী দল এবং মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে আবির্ভূত হলো– ঠিক তখনই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই ফর্মুলা অনেকে আওড়াতে শুরু করেছিলেন। তাহলে কি এবার আওয়ামী লীগ একইসঙ্গে সরকার ও বিরোধী দল দুটোকেই সামলাবে? বিরোধী দল যদি সরকারের অংশ হয় এবং সরকারের কথামতোই উঠাবসা করে তাহলে আর বিরোধী দলের দরকার কী? একাদশ জাতীয় সংসদে প্রকৃত বিরোধী দল কোথায় পাব? তাই বিরোধী দলকে ‘প্রকৃত’ করার জন্য মন্ত্রিসভায় স্থান দেওয়া হলো না। কিন্তু তাতেও কি সমস্যার সমাধান হলো? মনে তো হয় না! প্রকৃত বিরোধী দল- এদেশে? এ তো সোনার পাথরবাটি! তাই বোধ হয় মাননীয় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বললেন, ‘আমরা দেশে শক্তিশালী ও গঠনমূলক বিরোধী দল চাই, কিন্তু রাষ্ট্রবিরোধী দল চাই না। গণতান্ত্রিক দেশে একটি শক্তিশালী বিরোধী দল অবশ্যই থাকবে, না থাকার কোনো সুযোগ নেই।’ সরকারও চায় দেশে একটি শক্তিশালী বিরোধী দল থাকুক বলে মন্তব্য করলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও। তিনি বললেন, জনগণও চায় একটি বিরোধীদল জনগণের চোখ ও মনের ভাষা বুজুক। যাদের রাজনৈতিক কর্মসূচি পালনের সক্ষমতা থাকবে; যারা জনগণের বিপদে-আপদে পাশে দাঁড়াবে এবং সরকারের গঠনমূলক সমালোচনা করবে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..