যুক্ত হচ্ছে ইউএনএইচসিআর

ভাসানচরে যাচ্ছে আরও ৮০ হাজার রোহিঙ্গা

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : ভাসানচরে আরও ৮০ হাজার রোহিঙ্গাকে নেওয়ার পরিকল্পনার কথা জানালেন বাংলাদেশের কর্মকর্তারা। দীর্ঘ আলোচনার পর রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ভাসানচরের কার্যক্রমে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআরও যুক্ত হতে যাচ্ছে, বলেছেন তারা। এ নিয়ে ৯ অক্টোবর সরকারের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই হওয়ার কথা রয়েছে বলে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: মোহসীন গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন। কক্সবাজারের শরণার্থী শিবির থেকে আরও ৮০ হাজার রোহিঙ্গাকে নোয়াখালীর ভাসানচরে নেওয়ার পরিকল্পনা নিয়ে অনেক দিন থেকেই কাজ করছে সরকার। তবে এ দ্বীপে মিয়ানমার থেকে নির্যাতনের মুখে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের স্থানান্তরে জাতিসংঘ শুরু থেকেই আপত্তি তুলেছিল। সরকার ওই সময় থেকেই ইউএনএইচসিআরের সঙ্গে এ নিয়ে আলোচনা চালিয়ে আসছিল। তাদের বোঝানো ও রাজি করানোর চেষ্টার অংশ হিসেবে বেশ কয়েকবার দ্বীপটি পরিদর্শনের ব্যবস্থাও করা হয়। দীর্ঘ আলাপ আলোচনার পর চলতি বছরের জুনে ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের সহায়তা কার্যক্রমে সম্পৃক্ত হওয়ার ইঙ্গিত দেয় জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থাটি। ভাসানচরে ইতোমধ্যে প্রায় ২০ হাজারের মতো রোহিঙ্গা নেওয়া হয়েছে। আরও ৮০ হাজার গেলে সংখ্যাটি লাখের কাছাকাছি পৌঁছাবে। চার বছর আগে মিয়ানমারে নির্যাতনের মুখে পালিয়ে আসা প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা এখন কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরগুলোতে অবস্থান করছে। এদের প্রত্যাবাসন আটকে থাকায় সেখানে সামাজিক সমস্যা সৃষ্টির প্রেক্ষাপটে তাদের একটি অংশকে হাতিয়ার কাছে মেঘনা মোহনার দ্বীপ ভাসানচরে স্থানান্তরের কার্যক্রম শুরু করে সরকার। ১৩ হাজার একর আয়তনের ওই চরে ১২০টি গুচ্ছগ্রামের অবকাঠামো তৈরি করে এক লাখের বেশি মানুষের বসবাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর বিরোধিতার মধ্যে গত ৪ ডিসেম্বরে ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তর করা শুরু হয়। এ পর্যন্ত ছয় দফায় ১৮ হাজার ৩৩৪ জন শরণার্থীকে স্থানান্তর করেছে সরকার।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..