পল্লী রেশনিং চালু কর, গরিব মানুষের নামে বরাদ্দ চুরি রুখো

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

রাজবাড়ীতে ক্ষেতমজুর সমিতির সভা
একতা প্রতিবেদক : বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ডা. ফজলুর রহমান বলেছেন, গ্রামের ক্ষেতমজুরসহ গ্রামীণ মজুরদের জীবনমান উন্নয়নে সরকারকে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। প্রতিবছর কোটি কোটি টাকা বাজেটে গরিব মানুষের জন্য বরাদ্দ হলেও তার বেশিরভাগই লুটপাট হয়ে যায়। বর্তমানে গৃহহীনদের জন্য সরকারের গৃহ বরাদ্দেও দুর্নীতির খবর আমরা জেনেছি। বিশ্বব্যাপী করোনা পরিস্থিতি এখনও স্বাভাবিক হয়নি। এসময়ে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে গরিব, মেহনতি দিন এনে দিন খাওয়া মানুষগুলো। এদের জন্য সরকারের পর্যাপ্ত বরাদ্দ ছিল না। যা বরাদ্দ করা হয়েছিল তারও সিংহভাগ লুট হয়ে গেছে। তিনি অবিলম্বে গ্রামীণ মজুর ও গরিব মানুষের জন্য পল্লী রেশন চালুর দাবি করেন। ক্ষেতমজুর সমিতির উদ্যোগে বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় অনুষ্ঠিত সভায় তিনি এসব কথা বলে। আগামী ১৮ই মার্চ সংগঠনের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জেলা-উপজেলা ও গ্রাম কমিটির উদ্যোগে ক্ষেতমজুরসহ গ্রামীণ মজুরদের দাবিতে মিছিল, সমাবেশ আয়োজনের আহ্বান জানান তিনি। বিভিন্ন জেলা থেকে পাঠানো খবর: যশোর : বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতি যশোর জেলার মনিরামপুর উপজেলা কমিটির উদ্যোগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি মনিরামপুর পৌরসভার সামনে এক সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. ফজলুর রহমান। ক্ষেতমজুর সমিতি মনিরামপুর উপজেলা কমিটির সভাপতি কমরেড আব্দুল মজিদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য অ্যাড. আবুল হোসেন। সমাবেশ পরিচালনা করেন ক্ষেতমজুর সমিতি মনিরামপুর উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও বিল কাকোড়িয়া আন্দোলনের অন্যতম নেতা প্রভাষক মহিব্বুল্লাহ মহিব। সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন ক্ষেতমজুর সমিতি মনিরামপুর উপজেলা কমিটির কোষাধ্যক্ষ পরিতোষ চন্দ্র দাস, কৃষক সমিতি যশোর জেলার সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান নান্নু, চিন্ময় বিশ্বাস সহ আরো অনেকে। ক্ষেতমজুর সমিতি মনিরামপুর উপজেলা কমিটির একক নেতৃত্বে টানা দেড় বছরের লড়াইয়ের মাধ্যমে এলাকার মানুষের দুঃখ বিল কাকোড়িয়ার জলাবদ্ধতা দূর করার আন্দোলনের বিজয় অর্জিত হয়েছে। সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে পল্লী রেশনিং চালু, গ্রামীণ বরাদ্দ লুটপাট বন্ধসহ ক্ষেতমজুরসহ গ্রামীণ মজুরদের দাবি বাস্তবায়নের আন্দোলন জোড়দারের আহবান জানান। নড়াইল : ১১ ফেব্রুয়ারি সকাল ১১.৩০ নড়াইলে ক্ষেতমজুর সমিতি গঠনকল্পে সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় দ্রুত ক্ষেতমজুর সমিতির আহবায়ক কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ডা. ফজলুর রহমান, খন্দকার শওকত, কার্তিক বিশ্বাস, আফসার উদ্দিন, সনজিত ও সাদেকুর রহমান। ঝিনাইদহ : গত ১২ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার ঝিনাইদহে ক্ষেতমজুর সমিতির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ডা. ফজলুর রহমান, রবিউল ইসলাম খোকন, স্বপন বাগচি প্রমুখ। সাজ্জাদ হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় স্বপন বাগচিকে আহ্বায়ক করে জেলা আহ¦ায়ক কমিটির গঠন করা হয়। কমিটির অন্য সদস্যরা রবিউল ইসলাম খোকন, মাধুরি বিশ্বাস, আবু তৈয়ব অপু, ওয়াহাব মল্লিক, নজরুল ইসলাম, সাহাদৎ হোসেন। মেহেরপুর : মেহেরপুরে ক্ষেতমজুর সমিতির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন মাহমুদুল হক। সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সভাপতি ডা. ফজলুর রহমান সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। সভায় মাহমুদুল হককে আহ্বায়ক, রফিক উদ্দিনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্য সদস্যরা হচ্ছেন রফিকুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম কানন, মোশাররফ হোসেন, মিজানুর রহমান। চুয়াডাঙ্গা : গত ১২ ফেব্রুয়ারি বিকালে চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনায় প্রবীন নেতা নূরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ডা. ফজলুর রহমান বক্তব্য রাখেন। সভায় আ. সাত্তারকে আহ্বায়ক করে উপজেলা কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্য সদস্যরা হচ্ছেন মোশাররফ হোসেন, হোসেন আলি, আব্দুল মজিদ, রাসেল আহম্মদ, জিন্নাত আলি, আলমগীর হোসেন, জহুরুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন -জীবননগর, আব্দুল হালিম, ফরিদ আহম্মদ ও আনোয়ার হোসেন। ফরিদপুর : গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিকালে ফরিদপুরের মধুখালি উপজেলায় ক্ষেতমজুর সমিতির সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা কমিটির সভাপতি সামসুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় সভাপতি ডা. ফজলুর রহমানসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সভায় আগামী উপজেলা সন্মেলনের পূর্বে গ্রাম ও ইউনিয়ন কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। রাজবাড়ী : ১৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় রাজবাড়ী ক্ষেতমজুর সমিতির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলার সভাপতি মুজিব আলম বকুল। প্রধান আলোচক ছিলেন কেন্দ্রীয় সভাপতি ডা. ফজলুর রহমান। আরো আলোচনা করেন কেন্দ্রীয় সদস্য আবুল কালাম, আলেপ শেখ, ছাত্রনেতা রিপন। সভায় শীঘ্রই গ্রমীণ বরাদ্দ লুটপাট বন্ধ ও পল্লী রেশনিং এর দাবিতে আন্দোলন গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়। কুষ্টিয়া : ১৪ ফেব্রুয়ারি রবিবার সকাল ১১টায় কুষ্টিয়া কুমারখালি উপজেলা যোগেন্দ্রনাথ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ক্ষেতমজুর নেতা নজরুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে ক্ষেতমজুর সমিতির সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় কেন্দ্রীয় ক্ষেতমজুর সমিতির সভাপতি ডা. ফজলুর রহমান ক্ষেতমজুরদের বিভিন্ন শোষণ বঞ্চনা ও সমস্যা বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। আলোচনা করেন সিপিবি কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি কমরেড ওয়াকিল মুজাহিদ, সাধারণ সম্পাদক কমরেড হেলাল উদ্দিন, ডা সামসুজোহা মন্টু, মহসিন আলি, সিদ্দিকুর রহমান, আরেফিন সুলতানা চম্পা, প্রশান্ত মন্ডল, আলাউদ্দিন, বাবলু প্রমুখ। আলোচনা শেষে ডা. সমসুজোহা মন্টুকে আহবায়ক ও আরেফিন সুলতানা চাম্পা, বরিউল আওয়াল রবিকে যুগ্ম আহবায়ক করে জেলা আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..