বিভীষণ!

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : অন্য কারও বলা লাগছে না। ঘরের লোকেরাই এখন আওয়ামী লীগের দুর্নীতি-লুটপাট, জোর করে ক্ষমতা দখলের কথা বলছেন। নিজেরাই নিজেদের চিচিং ফাঁক করতে উঠে পড়ে লেগেছে। এই যেমন, নোয়াখালীতে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ভাই আব্দুল কাদের মির্জা বসুরহাটের মেয়র নির্বাচন ‘সুষ্ঠু হবে কিনা’ তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে বলেছেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হলে আওয়ামী লীগের অনেক সংসদ সদস্যও নোয়াখালীতে হারবেন। এ কি কথা! কাছাকাছি সময়ে তার দলের সভাপতি বলছেন, আওয়ামী লীগের হাত ধরে দেশে গণতন্ত্র শক্তিশালী হয়েছে। আর কাদের মির্জা বলছেন, সুষ্ঠু নির্বাচনই হচ্ছে না। এতদিন এসব বলে আসছে বিরোধী দলের নেতারা। আর এখন দলের লোকজনই বলছে। জনগণ নিশ্চয় হাজারও দুঃখ-দুর্দশা-নিপীড়নের মধ্যেও এতে মুচকি মুচকি হাসছেন। আরেক কাণ্ড রাজধানীতে। একই দলের সাবেক মেয়র বর্তমান মেয়রের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে মিছিল সমাবেশ করে ফাটিয়ে ফেলছেন। সাবেক মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, বর্তমান মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের শত শত কোটি টাকা তার নিজ মালিকানাধীন মধুমতি ব্যাংকে স্থানান্তর করেছেন এবং এই শত শত কোটি টাকা বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করার মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা লাভ হিসেবে গ্রহণ করছেন। অন্যদিকে অর্থের অভাবে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের গরিব কর্মচারীরা মাসের পর মাস বেতন পাচ্ছেন না, সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প অর্থের অভাবে বন্ধ হয়ে গেছে। এ ধরনের কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে তাপস সিটি করপোরেশন আইনের ৯(২)(জ) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী মেয়র পদে থাকার ‘যোগ্যতা হারিয়েছেন’ বলেও মন্তব্য করেন সাঈদ খোকন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এবং বিভিন্ন গণমাধ্যমের অনলাইনে এ সংক্রান্ত খবরের নিচে সাধারণ মানুষকে ব্যাঙ্গাত্মক অনেক কথাও বলতে দেখা গেছে। একজন বলেছেন, আরে দুই চোরের কাণ্ড দেখেন। এক চোর আরেক চোররে কয়, তুই আমার থেকে বেশি চোর। ক্ষমতাসীনদের সমর্থকরা সম্ভবত এখন ‘ঘরের শত্রু বিভীষণ’ বাগধারাটিই মনে মনে আওড়াচ্ছেন।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..