মুক্তিযুদ্ধের ধারায় দেশকে ফিরিয়ে আনার ডাক

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

একতা প্রতিবেদক : বেতিয়ারা শহীদ দিবস উপলক্ষে ১১ নভেম্বর কুমিল্লার বেতিয়ারায় সকালে বেতিয়ারার শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টিসহ (সিপিবি) বিভিন্ন দল, ছাত্র ইউনিয়ন, উদীচী, খেলাঘরসহ বিভিন্ন গণসংগঠন ও স্থানীয় জনসাধারণের পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম এক বিবৃতিতে বেতিয়ারার শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, শহীদদের স্বপ্ন এখনো পূরণ হয়নি। মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন ও আকাঙ্ক্ষা থেকে দেশ অনেক দূরে সরে গেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এখন আক্রান্ত। মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার আজও অর্জিত হয়নি। নিজেদের স্বার্থে শাসকশ্রেণির দলসমূহ জামাত-শিবিরসহ একাত্তরে পরাজিত গোষ্ঠীগুলোকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে পদদলিত করছে। ক্ষুদ্র দলীয় স্বার্থে একাত্তরের ঘাতক ও তাদের দলসমূহকে সামাজিক মর্যাদায় অধিষ্ঠিত করছে। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধের ধারায় দেশকে অগ্রসর করার

মধ্য দিয়েই বেতিয়ারার শহীদসহ মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত চেতনায় উজ্জীবিত বাম-গণতান্ত্রিক শক্তির উত্থান ঘটাতে হবে। দেশ থেকে সকল প্রকার শোষণ, বৈষম্যের অবসান ঘটিয়ে মুক্তিযুদ্ধের ধারায় দেশকে ফিরিয়ে আনার সংগ্রাম জোরদার করতে হবে। ১৯৭১ সালের ১১ নভেম্বর ছিল মুক্তিযুদ্ধের এক ঐতিহাসিক দিন। সেদিন দেশপ্রেম ও আত্মদানের এক অমর অধ্যায় রচিত হয়েছিল চৌদ্দগ্রাম উপজেলার বেতিয়ারায় পাকিস্তানি বাহিনীর সাথে কমিউনিস্ট পার্টি-ন্যাপ-ছাত্র ইউনিয়নের বিশেষ গেরিলা বাহিনীর কয়েক ঘণ্টা ধরে চলা মুখোমুখি সম্মুখ সমরে অসীম সাহসিকতার সাথে যুদ্ধ করে জীবন উৎসর্গ করেন বিশেষ গেরিলা বাহিনীর ৯ জন বীর গেরিলা যোদ্ধা। বেতিয়ারা যুদ্ধে শহীদ হন- সিরাজুম মুনীর, নিজাম উদ্দিন আজাদ, মো. শহীদুল্লাহ, বশির মাস্টার, আব্দুল কাইয়ুম, জহিরুল হক দুদু, আওলাদ হোসেন, কাদের মিয়া, সফিউল্লাহ। বীর যোদ্ধারা বেতিয়ারার শ্যামল মাটিতে বুকের রক্ত ঢেলে দিয়ে সেই অমর বীরত্বপূর্ণ ইতিহাস রচনা করেছিলেন।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..