বন্ধ পাটকল চালু কর শ্রমিকের পাওনা দাও

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত বাতিল, পিপিপি বা লিজ নয়, আধুনিকায়ন করে রাষ্ট্রীয় পাটকল চালু, অক্টোবর মাসের মধ্যে শ্রমিকের সমুদয় পাওনা পরিশোধের দাবি জানিয়েছে পাট-সুতা-বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদ। গত ১৬ অক্টোবর, সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সংগঠনের নেতারা এ দাবি জানান। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) উপদেষ্টা ও শ্রমিক নেতা সহিদুল্লাহ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং আসলাম খানের পরিচালনায় ঘোষণাপত্র ও দাবিনামা পেশ করেন পাট-সুতা-বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক কামরুল আহসান। বক্তব্য রাখেন, পাট-সুতা-বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মো. মছিউদদ্দৌলা, যুগ্ম আহবায়ক লুৎফর রহমান, হাফিজ জুট মিল ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী প্লাটিনাম জুট মিলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান, ইস্টার্ণ জুট মিলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইউসুফ আলী গাজী, শ্রমিকনেতা আব্দুল কাদের হাওলাদার, টিইউসির নেতা আবুল কালাম আজাদ, শ্রমিকনেতা শামসুল আলম, আমিরুল হক, আতাউর রহমান। বক্তারা বলেন, এ কথা কেউ অস্বীকার করতে পারবে না যে, স্বাধীনতার পর পাটশিল্পের মাধ্যমেই ‘সোনালী আঁশ’-এর দেশ হিসেবে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে পরিচিতি পেয়েছিল। ৬৯’র গণঅভ্যুত্থান থেকে শুরু করে মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে আমাদের পাটশিল্প শ্রমিকদের অবদান সকলেরই জানা আছে। ফলে পাটশিল্প শুধু অর্থনীতিই নয়; এটি বাংলাদেশ রাষ্ট্রের অস্তিত্বের সাথে জড়িত। এরকম একটি শিল্প আমাদের চোখের সামনে ধ্বংস হয়ে যাবে, তা হতে দেয়া যায় না। ‘আমরা অর্ধশতাব্দি পুরনোা পাট কলের পরিবর্তে আধুনিক ও উন্নত প্রযুক্তির যন্ত্রপাতির সংযোজন করে রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকল চালু চাই। যন্ত্রপাতির আধুনিকীকরণ শুধু রাষ্ট্রায়াত্ব পাটকলগুলোর ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য নয়, বেসরকারি পাটকলগুলোকেও এই ধারা চালু করতে হবে। সেক্ষেত্রে তাদেরকে কী ধরণের নীতি ও আর্থিক সহায়তা দেয়া দরকার-সরকারকে তাও ভেবে দেখতে হবে, ’ বলেছেন বক্তারা। একইদিন শ্রমিকনেতা সহিদুল্লাহ চৌধুরীকে আহ্বায়ক করে পাট-সুতা-বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের ২৫ সদস্যবিশিষ্ট একটি স্টিয়ারিং কমিটি গঠিত হয়েছে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..