ভিয়েতনাম ফেরত ৮১ প্রবাসী শ্রমিকের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি স্কপের

‘প্রতারক রিক্রুটিং এজেন্টদের শাস্তি দাও’

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদের (স্কপ) কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের এক জরুরি সভা থেকে ভিয়েতনাম থেকে ফেরত আসা ৮১ প্রবাসী শ্রমিকের নিঃশর্ত মুক্তি এবং প্রতারক রিক্রুটিং এজেন্টদের শাস্তি দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে। গত ৫ সেপ্টেম্বর বিকাল সাড়ে ৪টায় স্কপের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যুগ্ম সমন্বয়কারী ও জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি ফজলুল হক মন্টুর সভাপতিত্বে, এবং অপর যুগ্ম সমন্বয়কারী ও জাতীয় শ্রমিক জোটের সাধারণ সম্পাদক নঈমুল আহসান জুয়েলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি সহিদুল্লাহ চৌধুরী, জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামরুল আহসান, জাতীয় শ্রমিক জোটের সভাপতি সাইফুজ্জামান বাদশা, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি রাজেকুজ্জামান রতন, সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব বুলবুল, বাংলাদেশ লেবার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. দেলোয়ার হোসেন, জাতীয় শ্রমিক জোটের কার্যকরী সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ, বাংলাদেশ জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শামীম আরা, বাংলাদেশ ফ্রি ট্রেড ইউনিয়ন কংগ্রেসের সম্পাদক পুলক রঞ্জণ ধর। সভায় করোনাভাইরাস মহামারীকালে শ্রমজীবী মানুষের কাজ ও অধিকার হারানোর চিত্র পর্যালোচনার ভিত্তিতে স্কপের ৯ দফা দাবিনামা চুড়ান্ত করা হয় এবং এসব দাবিতে বৃহত্তর ঢাকার সব খাতের শ্রমিকদের প্রতিনিধিদের নিয়ে ২৬ সেপ্টেম্বও সকাল ১০টা থেকে দিনব্যাপী তাহের মিলনায়তনে কনভেনশন করার সিদ্ধান্ত হয়। সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, অভিবাসন আইন ২০১৩ এর ২৯ (১) ধারা অনুযায়ী কোন অভিবাসী কর্মীর, বিশেষত বিদেশে আটককৃত কিংবা আটকে পড়া বা বিপদগ্রস্ত কর্মীর দেশে ফিরে আসবার এবং বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশন বা দুতাবাসের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় সহায়তা পাওয়ার অধিকার আছে। এই আইনি অধিকার বলে ভিয়েতনামে প্রবাসী ঐ শ্রমিকরা চাকরি না পেয়ে বিপদগ্রস্ত হয়ে প্রতারকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে এবং সহযোগিতা পাওয়ার প্রত্যাশায় বাংলাদেশ হাইকমিশনে গিয়েছিল। অথচ শেষ পর্যন্ত তাদেরকে নিজ দেশে জেলে যেতে হয়েছে, যা খুবই দুঃখজনক। এই ধরণের কর্মকা- বাংলাদেশের অর্থনীতির অন্যতম প্রধান স্তম্ভ অভিবাসী শ্রমিকদের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে এবং মানবপাচারকারী চক্রকে উৎসাহিত করবে। নেতৃবৃন্দ ভিয়েতনাম ফেরত প্রবাসীদের দ্রুত মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানান, এবং প্রতারক রিক্রুিটং এজেন্ট ও জনশক্তি রপ্তানির নামে যারা মানবপাচারে জড়িত তাদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবি জানান।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..