ডেমরায় সহিদুল্লাহ চৌধুরী

ধ্বংস নয়, পাটশিল্পের আধুনিকায়ন করতে হবে

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : পাট চাষ ও পাটশিল্প দেশের ঐতিহ্য। পাটশিল্পকে কেন্দ্র করে নদীতীরবর্তী ডেমরা অঞ্চলে জনপদ, সভ্যতা, উন্নয়ন, ব্যবসা-বাণিজ্য গড়ে উঠেছে। দেশের প্রায় ৫০ লাখ কৃষক পাট চাষের সাথে যুক্ত। পাট চাষ, প্রক্রিয়াকরণ ও পাট জাতীয় বিভিন্ন উপকরণ তৈরি এবং বাণিজ্যের সাথে প্রায় ৪ কোটি মানুষের জীবন-জীবিকা জড়িত। এজন্য পাটশিল্পের ধ্বংস সাধন নয়, আধুনিকায়ন করতে হবে। গত ৯ সেপ্টেম্বর বিকেল ৪টায় ডেমরা সারুলিয়া বাজারে পাট-সুতা ও বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক প্রখ্যাত শ্রমিকনেতা শহীদুল্লাহ চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জনসভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতা আসলাম খান, ডেমরার আঞ্চলিক নেতা দেলোয়ার হোসেন। জনসভায় সহিদুল্লাহ চৌধুরী বলেন, আমরা প্রস্তাব দিয়েছিলাম এই বর্তমান টেকনোলজি দিয়ে পাটশিল্প চালানো সম্ভব নয়। হিসেব-নিকেশ করে একটি সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব সরকারের কাছে দিয়েছিলাম। বলেছিলাম চাইনিজ ভিক্টর বা অয়ান্দা কোম্পানির একটি মেশিন আনি, যার একবছরে উৎপাদন ক্ষমতা ৩৬ টন। আর দাম ১০ লাখ টাকা। যদি এই মেশিনটি আনতে পারি তাহলে মাত্র ১০০০ কোটি টাকা ইনভেস্ট করে আমরা লাভবান হতে পারি। অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বলেন, পাটশিল্প বন্ধ করা দেশের জন্য আত্মঘাতী। পাটশিল্পের ইতিহাস ঐতিহ্য রক্ষা করতে হবে। বিএনপি জোট সরকার আদমজী জুট মিল বন্ধ করে দিয়েছে। যা দেশের জন্য আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত ছিল। বন্ধ পাটকলগুলো পুনরায় চালু করা প্রয়োজন। তারা এ বিষয়ে স্কপ এবং চীনের প্রস্তাব নিয়ে সরকারকে সংলাপ ডাকার আহ্বান জানান। নেতৃবৃন্দ রাষ্ট্রায়ত্ত পাটশিল্পকে স্বয়ংক্রিয় যন্ত্রপাতির দ্বারা আধুনিকায়ন ও পাট শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অভিজ্ঞ কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে কার্যকর ব্যবস্থাপনা গড়ে তুলে দ্রুত পাটশিল্পকে চালু করার জন্য সরকারের নিকট দাবি জানান।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..