গণভোটে শক্তিশালী অবস্থানে পুতিন

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

একতা বিদেশ ডেস্ক : রাশিয়ার সংবিধান সংশোধনের গণভোটে বিপুল সমর্থন লাভ করেছে ভ্লাদিমির পুতিন। সদ্য অনুষ্ঠিত সংবিধান সংশোধনের পক্ষে পুতিনকে সমর্থন করেছেন শতকরা ৭৭.৯ ভাগ ভোটার। বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন শতকরা ২১.৩ ভাগ। ফলে পুতিন ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকতে পারবেন। সংবিধান সংশোধনের গণভোটে পক্ষে রায় আসার পর ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার সুযোগ-সম্বলিত ডিক্রিতে সইও করেছেন তিনি। ভোটের নির্ধারিত দিন থাকলেও ১ জুলাই করোনার কারণে আগের সপ্তাহজুড়ে ম্যারাথন ভোট গ্রহণ করা হয়। ৩ জুন রুশ নির্বাচনী কর্মকর্তারা ভোটের ফলাফলে জানান, মোট ৬৪ শতাংশ ভোটার তাদের ভোটদান করেছেন। এরমধ্যে সংবিধান সংশোধনের পক্ষে ৭৭.৯ ভাগ ভোট পড়েছে। আর বিপক্ষে ভোট পড়েছে ২১.৩ শতাংশ। এ রায়ের ফলে পুতিন সরকার সংবিধান সংশোধন করার অনুমোদন পায়। যাতে প্রেসিডেন্টের মেয়াদ সীমাবদ্ধতা তুলে নেওয়া হয়েছে। আগামী ২০২৪ সাল পর্যন্ত পুতিনের বর্তমান ক্ষমতার মেয়াদ রয়েছে। এ গণভোটের রায়ের ফলে ছয় বছর করে আরও দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থাকার সুযোগ তৈরি হয়েছে পুতিনের। নির্বাচনে জয়ী হলে আগামী ২০৩৬ সাল পর্যন্ত অনায়াসে ক্ষমতায় থাকছেন ৬৭ বছরের পুতিন। গত ২০ বছর ধরে দেশটির প্রেসিডেন্ট বা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতায় রয়েছেন এই নেতা। তবে বিরোধীরা এ ভোটের নিন্দা জানিয়েছেন। বিরোধিরা একে অবৈধ নির্বাচন বলে মন্তব্য করেছে। তাদের মতে, আজীবনের প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্যই পুতিন এমন ভোটের আশ্রয় নিয়েছেন। এর আগে জানুয়ারি মাসে পুতিনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছিলেন দেশটির নির্দলীয় সরকারবিরোধীরা। কিন্তু করোনা ভাইরাস সংক্রমণের পর বিক্ষোভ মাঠে মারা পরে। সংবিধানে ক্ষমতার মেয়াদ সংশোধন বাদেও রাশিয়ায় আন্তর্জাতিক আইনের দাপট কমানো, প্রেসিডেন্টের দুই মেয়াদের নিয়ম সংশোধন করা, বিদেশি নাগরিকত্ব কিংবা বিদেশে বসবাসের অনুমতি থাকা ব্যক্তিদের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হতে নিষিদ্ধের আইনও পাশ হয়।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..