কোলাকুলির ভয়ে পালাচ্ছেন ভোটাররা!

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
ঝিনাইদহ সংবাদদাতা : দেশজুড়ে চলছে করোনাভাইরাস আতঙ্ক। বেশি লোকসমাগম নিয়ে সরকারি নিষেধাজ্ঞাও জারি করা হয়েছে। বিরত থাকতে বলা হচ্ছে হ্যান্ডশেক বা কোলাকুলি থেকেও। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই কালীগঞ্জ পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনের প্রচারণা। প্রার্থী ও তার কর্মী সমর্থকেরা যাচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। অনেকেই জড়িয়ে ধরছেন, করছেন করমর্দন এবং কোলাকুলি। এতে জনগণের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। ভোটাররা এড়িয়ে চলছেন প্রার্থীসহ তাদের কর্মীদের। কোথাও প্রচার প্রচারণা শুরু হলেও সেখান থেকে ভোটাররা সটকে পড়ছেন। স্থানীয়রা জানান, করোনা ঠেকাতেই সরকার ইতোমধ্যে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে। এমনকি স্বাধীনতা দিবসসহ জাতীয় সব অনুষ্ঠান সীমিতভাবে করার নির্দেশনা দিয়েছে। সেখানে এতঝুঁকির মধ্যেও কালীগঞ্জে উপ-নির্বাচন কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে ভোটার ও সাধারণ মানুষের কাছে। করোনার ভয়ে ভোটাররা যেমন প্রার্থীদের এড়িয়েই চলছেন একইভাবে প্রার্থী আর তার প্রচারণায় যুক্ত কর্মীরাও বিব্রতবোধ করছেন। করোনার ঝুঁকি এড়াতে তাই আগামী ২৯ মার্চ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের অনুষ্ঠিতব্য উপ-নির্বাচন পেছানোর দাবি তুলেছেন। নির্বাচন কমিশন থেকেও দেশের সব নির্বাচন স্থগিতের আভাসও দেয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, গেল বছরে কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদের উপ-নির্বাচনে ৫নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আশরাফুল আলম আশরাফ মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। এতে ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদটি শূন্য হয়ে পড়ে। তবে সেই সময়ে ওই ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচন দেয়া হয়নি। বর্তমানে পৌরসভাটির মেয়াদ আর মাত্র এক বছর। গত ফেব্রুয়ারি ওয়ার্ডের উপনির্বাচননের তফশিল ঘোষণা করা হয়েছে। তবে তখন করোনার প্রাদুর্ভাব ছিল না। তবে বর্তমানে কালীগঞ্জ শহরে করোনা প্রতিরোধে ১২ জনকে হোম কেয়াররেন্টাইনে রাখা হয়েছে। পৌরসভা জুড়েই করোনা আতঙ্ক বেড়েছে। অনেকেই প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হচ্ছেন না। এমন পরিস্থিতিতে ভোটারদের পাশাপাশি প্রার্থীরাও পড়েছেন বিপাকে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..