লড়াই-সংগ্রামকে বেগবান করে মেহনতি মানুষের সরকার গড়বো

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সম্মেলনোত্তর পুনর্মিলনীর আলোচনায় বলছেন সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম
একতা প্রতিবেদক : গ্রামীন দরিদ্র মানুষের অধিকার আদায়ের লড়াকু সংগঠন বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতি গত ২০ মার্চ বিকালে মুক্তিভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে সংগঠনের ৩৯তম প্রতিষ্ঠবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা এবং দশম জাতীয় সম্মেলনোত্তর পুনর্মিলনী করে। ক্ষেতমজুর সমিতির সভাপতি ডা. ফজলুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি এবং ক্ষেতমজুর সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রেজা, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য রমেন্দ্র চন্দ্র বর্মন, অনিরুদ্ধ দাশ অঞ্জন, লিটন নন্দী। সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুল ইসলাম নাদিম। সভায় বক্তারা গ্রামীন মেহনতি মানুষের বিভিন্ন দুর্দশার চিত্র তুলে ধরে তাদের অধিকার আদায়ে ক্ষেতমজুর সমিতির চলমান সগ্রাম বেগবান করার আহ্বান জানান। ‘সব হাতে কাজ চাই, সব মুখে ভাত চাই’-এই দাবিকে গ্রামে-গঞ্জে ছড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে তীব্র আন্দোলনের ডাক দেয়ার আহ্বান জানান। মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ‘ক্ষেতমজুর সমিতির বিগত ৩৯ বছরে অভূতপূর্ব অর্জন রয়েছে। খাসজমি ভূমিহীনদের মধ্যে বণ্টনসহ অসংখ্য দাবি গ্রামের দরিদ্র মেহনতি মানুষের অধিকার বাস্তবায়নে ক্ষেতমজুর সমিতির আছে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা। তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমান সময়েও ক্ষেতমজুর সমিতির চলমান লড়াইয়ে গ্রামের বঞ্চিত দরিদ্র মেহনতি মানুষকে যুক্ত করার মাধ্যমে তাঁদের অধিকার আদায়ের সাথে সাথে গরিব-মেহনতি মানুষের সরকার গঠনের আন্দোলনকেও বেগবান করতে হবে। ১৯৮১ সালের ১৮ মার্চ বাংলাদেশ ক্ষেতমজুর সমিতি আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে। প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই গ্রামীন দরিদ্র মেহনতি মানুষের কাজ, মজুরি, জমি, ইনসাফ, অধিকার আদায়ে সংগনটি নিরবচ্ছিন্ন সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। গ্রামীন বরাদ্দ লুটপাটের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক লড়াই-সংগ্রামের পাশাপাশি পূর্ণ ট্রেড ইউনিয়ন অধিকার, সারাবছর কাজের নিশ্চয়তা, ন্যায্য মজুরির দাবিতেও ক্ষেতমজুর সমিতি সারাবছর সোচ্চার থেকেছে। বাজেটে গ্রামীন বরাদ্দ বৃদ্ধির দাবিতে এবং একইসাথে তা স্বচ্ছতার সাথে বণ্টনের দাবি জানিয়ে আসছে ক্ষেতমজুর সমিতি। পল্লী রেশনিং, পেনশন, ক্ষেতমজুরদের সন্তানদের শিক্ষার অধিকার, সমকাজে নারী-পুরুষের সমান মজুরির দাবিতে আগামীতে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলার প্রত্যয় পুনর্ব্যক্ত করা হয় ক্ষেতমজুর সমিতির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভা থেকে।
প্রথম পাতা
কর্তৃত্ববাদী শাসন হঠাতে হবে
রাষ্ট্রীয় পাটকল বন্ধের ঘোষণা ‘মুক্তিযুদ্ধের অঙ্গীকারের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা’
স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও পাটমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি বাম গণতান্ত্রিক জোটের
বন্ধ নয়, মাত্র ১২০০ কোটি টাকায় পাটকলগুলোকে লাভজনক করা সম্ভব
‘আওয়ামী লীগই রাষ্ট্রীয় পাটকলের কবর দিল’
বছরে একাধিকবার বিদ্যুৎ-জ্বালানির দাম বাড়ানোর বিল সংসদে
শ্রমিক ছাঁটাই-নির্যাতন, বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু বন্ধ না হলে সর্বাত্মক আন্দোলন
কমরেড হায়দার আকবর খান করোনাভাইরাসে আক্রান্ত
পাট শিল্প ধ্বংসের সরকারি সিদ্ধান্ত দেশি-বিদেশি লুটেরাদের স্বার্থে
লঞ্চডুবিতে হতাহতের ঘটনায় শোক বাম গণতান্ত্রিক জোটের
বন্যা মোকাবেলা করুন, সীমান্তে হত্যা বন্ধে ভারতকে চাপ দিন

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..