ইরানে প্রথম পর্বের ভোটগ্রহণ শেষ

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

একতা বিদেশ ডেস্ক : ইরানের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রথম পর্বের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। ২১ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় সময় সকাল আটটায় নির্বাচনি কেন্দ্রগুলোতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম পরাশক্তি ইরানের এবারের নির্বাচনে মোট সাত হাজার ১৫৭ জন প্রার্থী ২৯০টি আসনের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। বৈধ ভোটার পাঁচ কোটি ৭৯ লাখ ১৮ হাজার। ইরানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় জানিয়েছে এদের ভোট দেওয়ার জন্য সারাদেশে মোট ৫৫ হাজার নির্বাচনী কেন্দ্র খোলা হয়। বিজয়ী প্রার্থীকে প্রদত্ত ভোটের শতকরা অন্তত ২০ ভাগ ভোট পেতে হবে। তারা চার বছরের জন্য আইনপ্রণেতা হিসেবে কাজ করবেন। ইরানের নির্বাচনী আইন অনুযায়ী ভোট গ্রহণ শুরুর ২৪ ঘণ্টা আগে সব ধরনের প্রচারণা বন্ধ করতে হয়। পার্লামেন্ট নির্বাচনের কার্যক্রম আরও আগে শুরু হলেও গত ১৩ ফেব্রুয়ারি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থীরা তাদের প্রচারণা শুরু করেন এবং ২০ ফেব্রুয়ারি সকালে সে প্রচারণা শেষ হয়। আনুষ্ঠানিক প্রচার ও জনসমর্থন আদায়ের জন্য আট দিন সময় পেয়েছেন প্রার্থীরা। ইরানের রাজনীতি ধর্মরাষ্ট্র ও রাষ্ট্রপতি-শাসিত গণতন্ত্রের সংমিশ্রণে গঠিত। ১৯৭৯ সালের ডিসেম্বরের সংবিধান এবং এর ১৯৮৯ সালের সংশোধনীতে ইসলামি প্রজাতন্ত্রী ইরানের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, ও সামাজিক ক্রমের সংজ্ঞা প্রদান করে এবং উল্লেখ করে যে দ্বাদশবাদি শাখার শিয়া ইসলাম ইরানের দাপ্তরিক ধর্ম। ইরানের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত একজন রাষ্ট্রপতি, একটি সংসদ (বা মজলিস), একটি অভিজ্ঞদের পরিষদ রয়েছে, যারা শীর্ষ নেতা ও স্থানীয় উপদেষ্টা নির্বাচন করেন। সংবিধান অনুসারে এই সকল পদের জন্য সকল প্রার্থীদের নির্বাচনের পূর্বে প্রধান কাউন্সিলের দ্বারা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরীক্ষিত হবে। এছাড়া ‘রাষ্ট্রের ইসলামি বৈশিষ্টসমূহের সুরক্ষার জন্য’ বিভিন্ন সংস্থা থেকে নির্বাচিত প্রতিনিধি থাকে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..