সারাদেশে রণেশ দাশগুপ্ত জাতীয় পাঠ প্রতিযোগিতা

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : ঢাকাসহ সারাদেশে একযোগে অনুষ্ঠিত হলো বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা, সাংবাদিক-সাহিত্যিক-প্রাবন্ধিক-প্রগতিশীল রাজনীতিবিদ রণেশ দাশগুপ্ত স্মরণে “রণেশ দাশগুপ্ত জাতীয় পাঠ প্রতিযোগিতা-২০২০”। গত ৭ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৩টা থেকে ৪:৩০ পর্যন্ত দেশের সব জায়গায় অভিন্ন প্রশ্নপত্রে অনুষ্ঠিত হয় এ প্রতিযোগিতা। এবারের প্রতিযোগিতায় মোট ৫টি বিভাগে অংশ নেয় ছোট থেকে বড়, বিভিন্ন বয়সের কয়েক হাজার প্রতিযোগী। দেড় ঘণ্টা সময়ের মধ্যে মোট ৫০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেন বিভিন্ন বিভাগের প্রতিযোগীরা। বিভাগগুলোর মধ্যে যারা ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থী তারা ‘ক’ বিভাগে, ৬ষ্ঠ থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত ‘খ’ বিভাগ, ৯ম ও ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ‘গ’ বিভাগ এবং উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীরা ‘ঘ’ বিভাগে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। এছাড়া, সবার জন্য উন্মুক্ত ‘ঙ’ বিভাগেও সব বয়সের শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। প্রতিযোগীদের জন্য পাঠ্যক্রম নিয়ে প্রতিযোগিতার আগে “মণনের পাঠশালা” নামের একটি বই প্রকাশ করে সারাদেশে বিতরণ করে উদীচী। যেসব লেখা ও গল্পের উপর প্রতিযোগিরা প্রতিযোগিতায় অংশ নেন সেগুলো হলো- ‘ক’ বিভাগে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত আমার ছেলেবেলা এবং সত্যেন সেন-এর এটম বোম, ‘খ’ বিভাগে রণেশ দাশগুপ্ত-এর লেখা মাল্যদান এবং সত্যেন সেন রচিত প্রবন্ধ সমাজ ও বিজ্ঞান, ‘গ’ বিভাগে সত্যেন সেন রচিত প্রবন্ধ মানব সভ্যতার উন্মেষ এবং লিও টলস্টয়-এর কতটুকু জমি দরকার, ‘ঘ’ বিভাগে সোমেন চন্দ-এর লেখা গল্প ইঁদুর এবং রণেশ দাশগুপ্ত রচিত প্রবন্ধ শিল্প সাহিত্যে জনগণের ভূমিকা এবং ‘ঙ’ বিভাগের প্রতিযোগীদের জন্য ছিল রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর-এর বিদ্যাসাগর চরিত এবং রণেশ দাশগুপ্ত রচিত প্রবন্ধ সাম্যবাদী উত্থান প্রত্যাশা: আত্মজিজ্ঞাসা। উদীচীর বিভিন্ন জেলা ও শাখা সংসদের উদ্যোগে স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং শিক্ষক ও বিদ্যোৎসাহীদের সম্পৃক্ত করে অনুষ্ঠিত হয় “রণেশ দাশগুপ্ত জাতীয় পাঠ প্রতিযোগিতা-২০২০”। এবার ছিল এ আয়োজনের দ্বিতীয় বছর। এবারের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের প্রথমে জেলা ও শাখা পর্যায়ে প্রতি বিভাগের তিনজন করে প্রতিযোগীকে পুরস্কৃত করা হবে। এরপর প্রতি জেলার সর্বোচ্চ নম্বরপ্রাপ্তদের উত্তরপত্র পাঠিয়ে দেয়া হবে উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের কাছে। কেন্দ্রীয়ভাবে মূল্যায়ণ শেষে প্রতিটি প্রতিযোগী বিভাগের সর্বোচ্চ নম্বরপ্রাপ্তদের আগামী ২৭ ও ২৮ মার্চ ২০২০ অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সত্যেন সেন গণসঙ্গীত উৎসব ও জাতীয় গণসঙ্গীত প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠানমালায় জাতীয়ভাবে পুরস্কৃত করা হবে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..