টিকে গেলেন ট্রাম্প

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email

একতা বিদেশ ডেস্ক : অভিশংসন থেকে নিষ্কৃতি পেয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গুরুতর দুই অভিযোগে ট্রাম্পকে ক্ষমতা থেকে অপসারণের জন্য ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদ অভিশংসনের এই প্রস্তাব দেড় মাস আগে সিনেটে পাঠিয়েছিল। সিনেটে দুটি অভিযোগে তাকে অভিশংসিত করার প্রস্তাবে ভোট হয়। প্রথম অভিযোগ ক্ষমতার অপব্যবহার। দ্বিতীয় অভিযোগ কংগ্রেসের বিচার প্রক্রিয়ায় বাধা সৃষ্টি। ক্ষমতার অপব্যবহারের প্রস্তাবে ট্রাম্পের পক্ষে ভোট পড়ে ৫২টি। বিপক্ষে পড়ে ৪৮ ভোট। গত ৫ ফেব্রুয়ারি ঐতিহাসিক সেই বিচারের শুনানি শেষে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্টকে পদচ্যুত না করার এই সিদ্ধান্ত আসে । বিচার প্রক্রিয়ায় বাধা সৃষ্টির অভিযোগে ট্রাম্পের পক্ষে ভোট পড়ে ৫৩টি। তার বিপক্ষে পড়ে ৪৭ ভোট। এর কোনো একটি অভিযোগে দুই তৃতীয়াংশ ভোটে দোষী সাব্যস্ত হলেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে দায়িত্ব ছেড়ে দিতে হতো ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের হাতে। তবে সিনেটে ট্রাম্পের নিজের দল রিপাবলিকান পার্টির সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় তেমন কিছু যে ঘটবে না, তা অনুমিতই ছিল। ট্রাম্পের আগে প্রেসিডেন্ট এন্ড্রু জনসন এবং বিল ক্লিনটনকে অভিশংসনের প্রস্তাব সিনেটে পাঠিয়েছিল প্রতিনিধি পরিষদ। তবে সিনেট তাদের কাউকে পদচ্যুত করেনি। ভোটের পর ডেমোক্র্যাট দলীয় সদস্যরা বলেছেন, এর ফলে মি. ট্রাম্প আরো বেপরোয়া হয়ে উঠবেন। হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, ‘মি. ট্রাম্প অ্যামেরিকার গণতন্ত্রের জন্য সব সময় একটি ‘হুমকি’ হিসেবে বিবেচিত হবেন এবং রিপাবলিকান সেনেটররা আইন না থাকার ব্যাপারটিকে সাধারণ ব্যাপার বানিয়ে ফেলেছেন।’ সিনেটে ডেমোক্র্যাট দলীয় নেতা চাক শুমার বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট এ যাত্রা রেহাই পেলেও সবাই জানেন তার ত্রুটিসমূহ।’ আর জয়ের প্রতিক্রিয়ায় বিরোধীদের তীব্র তিরস্কার করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। বলেছেন, ‘আমি আমার জীবনে ভুল কাজ করেছি, স্বীকার করছি...কিন্তু সর্বশেষ পরিণতি এটাই।’ এসময় একটি পত্রিকায় ‘ট্রাম্প নিষ্কৃতি পেলেন’ শিরোনামের প্রতিবেদন তুলে ধরেন তিনি।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..