করোনাভাইরাস: মৃতের সংখ্যা ছাড়াতে পারে সার্স মহামারিকে

Facebook Twitter Google Digg Reddit LinkedIn StumbleUpon Email
একতা প্রতিবেদক : চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া নিউমোনিয়া সদৃশ নতুন করোনাভাইরাসে পাঁচ সপ্তাহেই মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৩৬ জনে, আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৩২ হাজারের কাছে। সংক্রমণের বিস্তৃতি এবং এর প্রতিরোধের কার্যকর ব্যবস্থা না মেলায় প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা সার্স মহামারিতে মৃত্যুর সংখ্যাকে ছাড়িয়ে যাবে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। কেবল চীনের মূল ভূখণ্ডেই নভেল বা নতুন করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দাঁড়িয়েছে ৩১ হাজার ১৪৩ জনে। চীনের বাইরে আরও অন্তত ২৫টি দেশ ও অঞ্চলে আড়াইশর বেশি মানুষ এ ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছে। চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, ভাইরাসে দেশটির মূল ভূখণ্ডেই মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৩৬ জনে। চীনের বাইরে কংকং ও ফিলিপিন্সে মারা গেছে আরও দুজন। বেশিরভাগ মৃত্যু ও নতুন সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে চীনের হুবেই প্রদেশে, যে প্রদেশের উহান শহরকে এ ভাইরাসের ‘উৎসস্থল’ বলা হচ্ছে। ভাইরাসটির ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে রোধ করতে চীনের বেশ কয়েকটি শহর অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে এবং বিশ্বজুড়ে কয়েক হাজার লোককে রাখা হয়েছে কোয়ারেন্টিন করে। কিন্তু ভাইরাস ছড়ানো ঠেকানো যাচ্ছে না। জাপানের ইয়োকোহামা এবং হংকং বন্দরে দুটি প্রমোদতরীর কয়েক হাজার যাত্রী ও ক্রুকে পর্যবেক্ষণের জন্য জাহাজেই অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে ইয়োকোহামা বন্দরের কাছে নোঙ্গর করে থাকা ডায়মন্ড প্রিন্সেসে ৬১ জনের দেহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে। বেইজিং বলেছে, নতুন করোনাভাইরাসের ছড়িয়ে পড়া বন্ধ করতে ‘জনযুদ্ধ’ শুরু করেছে তারা। এ কাজে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতা চেয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। ৭ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে টেলিফোন করে তিনি বলেছেন, নতুন এ করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সম্ভব সবকিছুই চীন করবে। আর এই যুদ্ধে জয়ী হওয়ার বিষয়ে চীন আত্মবিশ্বাসী। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে চীনের পাশাপাশি পুরো বিশ্বের অর্থনীতিই ক্ষতির মুখে পড়ছে। আতঙ্কের কারণে বিভিন্ন দেশ চীনের সঙ্গে বিমান ও জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখায় বৈশ্বিক পণ্য পরিবহন ব্যবস্থা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। বিভিন্ন বড় কোম্পানি চীনে তাদের কার্যক্রম বন্ধ রাখায় সামনের দিনগুলোতে অটোমোবাইল ও ইলেক্ট্রনিক্স থেকে শুরু করে তৈরি পোশাক ও প্লাস্টিকসহ নানা পণ্যের বাজারে এর প্রভাব পড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

Print প্রিন্ট উপোযোগী ভার্সন



Login to comment..
New user? Register..